কর্নেল এ আর গনির বাগানের করোসল  ফলডিমলা, নীলফামারী সংবাদাতাঃ করোসল (corossol) এ্যানোনা মিউরিকাটা গোত্রের একটি ফল যা অনেক ক্ষেত্রেই ক্যামো থ্যারাপির কাজ  করে থাকে। কর্নেল এ আর গনি (অবঃ) তাঁর নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের গ্রামের বাড়ীতে প্রায় ২ একর জমিতে নিজ উদ্যোগে লাগিয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে সংগ্রহ করা মানব দেহের উপকারী প্রায় শতাধিক ফলীয় গাছ।

করোসল গাছটি ২০১১ইং সালে পশ্চিম আফ্রিকার আইভরিকোষ্ট হতে সংগ্রহ করা হয়। পড়ৎড়ংংড়ষ ওয়েব সাইটে ঢুকে ক্যান্সারের প্রতিশোধক হিসেবে এই ফলের পক্ষে বিশেষজ্ঞদের বহুবিদ মতামত পাওয়া যায়। অনেক দেশেই এই ফলটি ক্যান্সার প্রতিরোধক ফল হিসেবে পরিচিত। প্রায় ৫ বছর বয়সী কয়েকটি গাছের মধ্যে একটি গাছে ফল ফলেছে যার আনুমানিক ওজন ২৫০ গ্রাম।

এছাড়াও ঐ বাগানে লাগানো হয়েছে বিভিন্ন রোগের প্রতিশোধক শতাধিক উপকারী গাছ। এটি তিনি সখের বসবতি হয়ে করেছেন। কোনো বাণিজ্যিক পরিকল্পনায় নয়। পরিপূর্ণ ঐ বাগানের প্রতিটি গাছের পরিচিতির জন্য নাম সম্বিলিত সাইনবোর্ড ঝুলে দেওয়া হয়েছে। এ বাগান সঠিকভাবে পরিচর্যার জন্য রেখেছেন দুইজন  কেয়ারটেকার।

স্বরেজমিনে গিয়ে দেখাযায় কর্নেল এ আর গনির সেই বাগানে গাছের পরিচর্জায় ব্যস্ত দুই কেয়ারটেকার জুয়েল ইসলাম জেলে ও তফিজুল ইসলাম। তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, স্যার আমাদের শূধু এই গাছ রক্ষণাবেক্ষনের জন্যই রেখেছেন। প্রতিদিন শত ব্যস্ততার মাঝেও গাছের খোঁজ-খবর নেন তিনি, গাছের যেন কোনো সমস্যা না হয় সে জন্য স্থানীয় কৃষিবিভাগের পরামর্শে প্রয়োজন অনুযায়ী গাছের রোগের চিকিৎসা, পরিমিত পানি, ও খাদ্য দিয়ে থাকেন তারা।

তারা বলেন স্যার ঢাকায় থাকেন মাঝেমাঝে গ্রামের বাড়ীতে আসেন। গ্রামের বাড়ীতে যে ২/১ তিনি কাটান। তা বলা চলে গাছের সাথেই। তিনি এলেই দিনরাত প্রতিটি গাছের কাছে গিয়ে ভালমন্দ দেখেন ও প্রয়োজনে নিজেই পরিচর্যা করেন।

এ বিষয়ে কর্নেল এ আর গনি (অবঃ) এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, চাকুরীর কারণে বিভিন্ন দেশে দায়িত্ব পালনের সুযোগ হয়েছিলো আমার। যে দেশেই যেতাম সেখানেই খুঁজে নিতাম মানব দেহের জন্য উপকারী বৃক্ষ এবং তা সংগ্রহ করে বৃক্ষের এ বাগান তৈরীর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য