Birgonj Degree College1বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) সংবাদাতা ॥ বীরগঞ্জে ডিগ্রী কলেজটি সরকারী করনের জোর দাবী উঠেছে।

১৯৭২ইং দিনাজপুর জেলার সর্ব উত্তরে এক জনবহুল এলাকা জনসংখ্যা অনুপাতে এখানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তুলনায় শিক্ষার্থীর সংখা অনেক বেশী। স্বাধীনতা উত্তর শিক্ষা দীক্ষায় প্রতিষ্ঠান গুলোতে ছাত্রদের প্রতি তেমন যত্ন না নেয়ায় সংস্কৃতি হয়ে ওঠে বীরগঞ্জ।

এ অবস্থা ও সময়ের প্রেক্ষাপটে স্বকীয়তা সম্পন্ন একটি স্বতন্ত্র প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করা অনিবার্য হয়ে উঠে এলাকার বিশিষ্ট ব্যাক্তি বর্গের নিকট।

সে লক্ষ্যেই ৭ একর জমির উপর এ উপজেলায় বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ নামে একটি প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়। তখন কলেজ প্রতিষ্ঠার ধারনা খুব কম মানুষের ছিল।

এমতাবস্থায় বাঁশের বেড়া টিনের চালায় বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজর অস্থায়ী ভাবে স্থাপন করা হয়। এ নুতন ধারার প্রতিষ্ঠানের রুপদানের জন্য একজন রুপকার প্রয়োজন হয়।

তাই অত্র এলাকার সমাজপতি শিক্ষানুরাগী বিশিষ্ট সমাজসেবক ও রাজনৈতিক নেতা মরহুম আলহাজ্ব হবিবর রহমান, খেরাজ উদ্দিন শাহ্ মাষ্টার সহ আরও বেশ কয়েকজনের মতামতের ভিত্তিতে বীরগঞ্জ থানার নিজপাড়া ইউনিয়নের দেবীপুর গ্রাম নির্বাসী আজিম উদ্দিন আহাম্মেদ ভারতের আলীগড় বিশ্ববিদ্যালয় হতে এলএলবি মাষ্টার্স ডিগ্রী প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল প্রাপ্ত হন।

তিনি নিজ স্বভাবজাত ব্যবহারে সকল অভিভাকদের মন জয়ের পাশাপাশি তাদের সন্তানদের সন্তান সুলভ আচরনে এবং কলেজ মুখী ও মন্ত্রমুগ্ধ করে গড়ে তোলে স্থানীয় ছাত্র ছাত্রীদের।

এভাবে তার আন্তরিকতায় কলেজটি স্থানীয় জনসাধারনের নিকট গ্রহনযোগ্যতা অর্জন করে। বর্তমানে বীরগঞ্জের কৃতি সন্তান প্রিন্সিপাল মোঃ খয়রুল আলম চৌধুরী জানান, ৩৫০ ছাত্রছাত্রী নিয়ে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে সুদক্ষ পরিচালনা কমিটির সভাপতি দিনাজপুর-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ও আন্তরিকতায় ১০০ফিট করে  ৩তলা ৩টি ও ১০০ফিট করে ২তলা ২টিসহ মোট ৫টি একাডেমিক ভবন এবং ২তলা ১টি প্রশাসনিক ভবন রয়েছে।

বর্তমানে ৭৫ জন শিক্ষক কর্মচারী ও ৬ হাজার ছাত্রছাত্রী, অভিভাবক, রাজনৈতিক সামাজিক ও সুশিল সমাজের গনমানুষের সহযোগিতায় ১০ বছর পূর্বে দায়িত্ব প্রাপ্ত হয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের শতভাগ পাশের  লক্ষ্য নিয়ে বাংলা, সমাজ বিজ্ঞান, রাষ্ট্র বিজ্ঞান, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি এবং ব্যবস্থাপনা বিষয়ে অর্নাস কোর্স চালু করেছি।

উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা ইতিমধ্যে দিনাজপুর বোর্ডে পরপর দুইবার সেরা টুয়েন্টিতে প্রবেশ করে বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ তথা বীরগঞ্জ উপজেলার সুনাম অর্জন করে সকলের মুখ উজ্জল করেছে। অনলাইনে এইচএসসিতে ৩হাজার ৬শত জন ছাত্রছাত্রী দরখাস্ত করলেও ভর্তি নেওয়া হয়েছে ৮শত জন।

ডিগ্রীতে বিভিন্ন শাখায় ৩হাজার আবেদন করে কিন্ত ভর্তি নেওয়া হয় ৮শত জন। অনার্স ৫টি বিভাগে ২৫০জন (উত্তর বঙ্গের বিভিন্ন জেলার) ভর্তি নেওয়া হয়। একটি ছাত্রাবাসে ২শত জন ছাত্রসহ বিভিন্ন ম্যাচে ১হাজারেরও বেশী ছাত্র অবস্থান করছে। এছাড়াও প্রাইভেট ছাত্রী নিবাসে ও ম্যাচে ১হাজার ২শত থেকে ৩শত ছাত্রী পড়াশুনা করে।

অধ্যক্ষ খয়রুল আলম চৌধুরী একজন শিক্ষনুরাগী শিক্ষাবিদ যার সংস্পর্শে ছাত্র-চাত্রীরা শিক্ষা-দীক্ষায়, আদব-কায়দায় অনন্য হয়ে গড়ে উঠতে সহায়তা পেয়েছে। তার হাতে গড়া ছাত্রছাত্রী দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে পড়েছে আপন মেধায়। দেশের স্বনামধন্য র্ভাসিটি গুলোতে স্থান করে নিয়েছে তারই হাতে গড়া ছাত্র ছাত্রীরা।

তিনি কলেজের সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে সংশ্লিষ্ঠ সকলের প্রতি আহবান জানান। এছাড়াও সকল আর্ন্তজাতীক এবং জাতীয় দিবস পালনসহ বিভিন্ন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পালন করা হয়।

কলেজটি সরকারী করনের জন্য হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রী অভিভাক এলাকার গণ্যমান্য ও শিক্ষানুরাগী ব্যাক্তিবর্গ বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজটি সরকারী করনের জন্য দিনাজপুর-১আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালের সহযোগিতায় শত বছরের শেষ্ঠ বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশু হস্তক্ষেপের জোর দাবী জানিয়েছেন।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য