48820_0ব্রাজিল থেকে চারশ কোটি টাকার নিম্নমানের আমদানি করা গম নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ উঠলেও তা এখনই অনুসন্ধান করতে চায় না দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সরকারি বিভিন্ন সংস্থাগুলোর প্রতিবেদন যাচাই-বাছাই করার পর সিদ্ধান্ত নেবে সংস্থাটি।

মঙ্গলবার দুদকের মিডিয়া সেন্টারে মাসিক সংবাদ সম্মেলনে দুদকের মহাপরিচালক ড. শাসছুল আরেফিন জানালেন এমনটাই। এমসয় উপস্থিত ছিলেন দুদকের পরিচালক নূর মোহাম্মদ ও মোহাম্মদ বেলাল হোসেন।

গম আমদানি নিয়ে বড় এ দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধানে দুদকের এমন অনীহায় সংবাদ সম্মেলনে তোপের মুখে পড়েন রাষ্ট্রীয় দুর্নীতি দমন সংস্থাটির কর্মকর্তারা।
ব্রাজিল থেকে আমদানি করা ওই গম ‘নষ্ট ও পচা’ বলে পুলিশের পক্ষ থেকে আপত্তি তোলার খবর গণমাধ্যমে এলে আলোচনা শুরু হয়।

এ নিয়ে মঙ্গলবার দুদকের মাসিক সংবাদ সম্মেলনে ব্রাজিল থেকে আসা গম দুর্নীতির অভিযোগের অনুসন্ধান করা হবে কি-না জানতে চাইলে দুদকের মহাপরিচালক শাসছুল আরেফিন বলেন, উচ্চ আদালতে এ বিষয়টি নিষ্পত্তি হয়নি। এছাড়া সরকারের দু’একটি সংস্থা ব্রাজিল থেকে আসা গমের বিষয়ে তদন্ত করছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। এগুলো শেষ হলে আমরা পর্যালোচনা করে দেখবো।

সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন করা হয়, ব্রাজিলের গমের বিষয়ে দুদকের অনুসন্ধানে বাধা না থাকলেও কেন করা হচ্ছে না?

এসময় দুদকের এ মহাপরিচালক বলেন, বললাম তো আমরা অন্যদের প্রতিবেদন খতিয়ে দেখে পরে সিদ্ধান্ত নেবো।

এ বিষয়ে অনুসন্ধানে সরকার থেকে কোনো চাপ আছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, না আমরা চাপে নেই। কমিশন স্বাধীনভাবে কাজ করছে।

সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন করা হয়, ‘সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে সরকারি সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগে মামলার অনুমোদন দিয়েও মামলা দায়ের হচ্ছে না কেন? মামলার অনুমোদন দিয়ে সেখান থেকে সরে যাওয়ার সুযোগতো নেই।’

এর উত্তরে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত দুদকের পরিচালক মোহাম্মদ বেলাল হোসেন বলেন, ‘আমরা এটা পর্যালোচনা করছি।’ দুদকের পরিচালকের এমন কথায় সংবাদ সম্মেলন থেকে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন, ‘মামলা অনুমোদনের পরে তো পর্যালোচনার সুযোগ নেই। কারণ পর্যালোচনা করেইতো মামলার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।’
‘এটা কমিশনের বিষয়’ বলেই তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।

সংবাদ সম্মেলনে দুদকের পক্ষ থেকে মে ও জুন মাসে দুদকের কিছু কার্যক্রম তুলে ধরা হয়।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য