Hotta khun হত্যারংপুর সংবাদাতাঃ রংপুর মহানগরীর ধাপ এলাকায় পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে লিমন (২৭) নামে এক পরিবহন শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার রাতে ধাপ আরকে রোডের ক্যান্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে এ হত্যাকা-ের ঘটনাটি ঘটে। নিহত লিমন ধাপ খলিফাপাড়া হাজিরটারি এলাকার সুলতান মিয়ার ছেলে এবং কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের গাইবান্ধা টিকিট কাউন্টারে কর্মরত ছিলেন।

এদিকে ওই রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে হত্যাকা-ের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে একজনকে আটক করেছে।

পুলিশ জানায়, মিন্টু নামে এক রিক্সাচালকের কাছ থেকে সুদের ওপর ৫ হাজার টাকা ধার নিয়েছিলেন শাজাহান। দীর্ঘদিন ধরে টাকা না দেয়ায় মিন্টু টাকার বিষয়টি শাজাহানকে অবগত করেন। ঘটনার দিন সন্ধ্যার পর ওই টাকা চাইতে শাজাহানের বাড়িতে যান লিমন। এ সময় শাজাহান টাকা দেবার কথা জানিয়ে রাত সাড়ে ১১ টার দিকে লিমনকে ক্যান্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে দেখা করতে বলেন। শাজাহানের কথা মতো লিমন ওই সময়ে সেখানে গেলে আগে থেকে প্রস্তুতি নিয়ে থাকা শাজাহান ও তার সঙ্গীরা লিমনকে উপর্যপুরি ছুরিকাঘাত করে।

এতে ঘটনাস্থলেই লিমন মারা যান। এ সময় লিমনকে বাঁচাতে ওই এলাকার এক চিকিৎসকের গাড়ি চালক এবং ইসলামবাগ আরকে রোড এলাকার আজাহার আলীর ছেলে পাভেল মিয়া এগিয়ে গেলে তাকেও ছুরিকাঘাত করেন দুর্বৃত্তরা। পরে স্থানীয়রা পাভেলকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। তিনি হাসপাতালের ৪র্থ তলার ১৪ নং ওয়র্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুরো ধাপ এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ওই এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে।

এদিকে কোতোয়ালি থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক(এসআই) হারেস সিকদার ও আমিনুল ইসলাম রাত সাড়ে ৩ টার দিকে সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযান চালিয়ে নগরীর ছিট কেল্লাবন্দ সিও বাজার এলাকার ফজলে রহমানের ছেলে শাজাহান (৩০)কে নিজ বাড়ি থেকে আটক করেন।

কোতয়ালী থানা পুলিশের ওসি আবদুল কাদের জিলানী বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক শাজাহান হত্যাকা-ের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। লিমনের মরদেহ রংপুর মেডিকেল কলেজের মর্গে রাখা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে তার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় জড়িত অন্যান্যের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও ওসি জানিয়েছেন।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য