chirirbandar badsha photoচিরিরবন্দর (প্রতিনিধি)  সংবাদাতাঃ মুসলমানদের সবচেয়ে ধর্মীয় বড় উৎসব ঈদুল ফিতর ঘনিয়ে আসলেও এখন পর্যন্ত দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে ঈদের বাজারে তেমন বেচাকেনার প্রভাব না পড়ায় কাপড় পাদুকাসহ বিভিন্ন প্রকার প্রসাধনী সামগ্রীর দোকানদারদের মধ্যে হতাশা নেমে এসেছে।

chirirbandar badsha photo1উপজেলার ব্যস্ততম ব্যবসাকেন্দ্র  ঘুঘুরাতলী মোড়ের  ভাই ভাই সুপার মার্কেটের বেশ কয়েকজন দোকানদার জানায়, অন্যান্য বছরে তাদের কাপড় ও জুতার দোকানে  রমজানের ১৫  দিন পার হতে না হতেই ঈদের কেনাকাটা শুরু হতো এবার ঈদের বাকী আর মাত্র আট দিন। সকাল থেকে এখন পর্যন্ত ৩০ জন গ্রাহকও আসেনি ঈদের কেনাকাটা  করতে।

তারা আরও জানায়, ঈদ উপলক্ষে ব্যাংক থেকে ঋন ও পাইকারী বিক্রেতাদের কাছ থেকে মালামাল বাকী  নিয়ে দোকান সাজানো হয়েছে। যদি ঈদের আগে এসব মালামাল বিক্রি না হয় তাহলে তাদের লোকসানের হিসাব কষতে হবে। ঈদ মার্কেট করতে আসা কিছু ক্রেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, চিরিরবন্দরের অধিকাংশ লোক কৃষিজীবি, বাজারে ধানের বাজার না থাকায় এবার অনেকে ঈদের প্রয়োজনীয় কেনাকাটা করতে পারবেনা। তাছাড়া উপজেলা বাজারটি দিনাজপুর শহরের নিকটতম বাজার হওয়ায় মধ্যবিত্ত ও চাকুরে ক্রেতারা শহরে গিয়ে ঈদের বাজার করছে।  তাই এখানে এখন  পর্যন্ত ঈদের কেনাকাট জমে উঠেনি।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য