Dinajpur-01-03-2014জিন্নাত হোসেন॥ দেশে ক্রমবর্ধমান খাদ্য চাহিদা বাড়ছে। আগামী ২০৫০ সাল নাগাদ দেশের খাদ্য চাহিদা বেড়ে বর্তমানের চেয়ে দিগুন হবে। আর এ চাহিদা মোকাবেলায় রাসায়নবিদ ও কৃষিবিদদের একত্রে কাজ করতে হবে।

শনিবার হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি রসায়ন বিভাগ ও বাংলাদেশ রসায়ন সমিতির যৌথ উদ্যেগে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী ৩৬তম বাংলাদেশ রসায়ন সমিতির বার্ষিক সম্মেলনে বক্তারা এসব কথা বলেন।

সম্মেলনে বক্তারা বলেন, খাদ্য নিরাপত্তায় রসায়নের গুরুত্ব অপরিসীম।  দেশের টেকসই উন্নয়নে ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠির খাদ্য নিরাপত্তায় রসায়নবিদদের প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে হবে। সেই সাথে কৃষকদের কৃষি কাজে নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে তাদের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে।

সম্মেলনের আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. বলরাম রায় এর সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথিব রক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সদস্য ও বিশিষ্ট বিজ্ঞানী প্রফেসর ড. শরীফ এনামুল কবির। বক্তব্য রাখেন সম্মেলনের প্রধান পৃষ্টপোষক ও হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর মো. রুহুল আমিন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. আলাউদ্দীন, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর আল নাকিব চৌধুরী ও বাংলাদেশ রসায়ন সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. জসিমউদ্দিন আহমেদ । সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আয়োজক কমিটির সচিব প্রফেসর ড. মো. নাজিমউদ্দিন।

মূল বিষয়ের উপর প্রবন্ধ উপস্থাপন্ করেন এ উপমহাদেশের প্রখ্যাত রসায়ন বিজ্ঞানী ও জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. সৈয়দ সফিউল্ল্যাহ। দিন ব্যাপী এ সম্মেলনে প্রায় ১৫০ টি বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ উপস্থাপন ও আলোচনা করা হয়। দেশ বিদেশ থেকে আগত বিভিন্ন বিজ্ঞানীরা মৌখিক উপস্থাপন এবং পোস্টার উপস্থাপনের মাধ্যমে তাদের বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। পাঁচটি সেশনে ভাগ হয়ে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল “খাদ্য নিরাপত্তায় রসায়নের ভূমিকা” । গুণগত মান সম্পন্ন শস্য উৎপাদনে রসায়নবিদ ও কৃষি রসায়নবিদগণের গুরুত্ব অপরিসীম। কৃষিবিদ এবং রসায়নবিদ এ দুই বিজ্ঞানী একসাথে মিলে কাজ করতে পারলেই গুণগত মানের শস্য উৎপাদন করা সম্ভব। আর এ লক্ষ্যেই উত্তরবঙ্গের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি) দিনাজপুরে প্রথম বারের মত এ জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য