arrরংপুর সংবাদাতাঃ  রংপুরে নিখোঁজের ৪ দিন পর সোহেল (২৫) নামে এক যুবকের মস্তকবিহীন মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত শনিবার বেলা ১ টার দিকে নগরীর  দেওয়ানবাড়ী সড়কের শ্যামা সুন্দরী খাল থেকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত সোহেল শহরের পশ্চিম জুম্মাপাড়ার মারুয়াপট্্ির এলাকার সুরুজ মিয়ার ছেলে এবং তিনি ওই এলাকায় ঢাকাইয়া সোহেল নামে পরিচিত। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ দুই জনকে আটক করেছে। আটকরা হলেন সদর হাসপাতাল এলাকার বাকের লালের ছেলে সুবাশ ও সেনপাড়া এলাকার মৃত মতিয়ার রহমানের ছেলে মিলন।
আটককৃতদের স্বীকারোক্তির উদ্ধৃতি দিয়ে পুলিশ  জানায়, অভ্যন্তরীন দ্বন্দ্বের জের ধরে গত মঙ্গলবার সোহেলকে অপহরণ করে তারই বন্ধুরা। পরে বুধবার দুপুর ১ টার দিকে  আটককৃত সুবাশের বাড়িতে সোহেলকে চাপাতি ও বটি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে ওই দিন-রাত ৩ টার দিকে পাশেই শ্যামা সুন্দরী খালে বস্তাবন্দী করে মরদেহটি ফেলে দেওয়া হয়। এদিকে ৪ দিন ধরে সোহেল নিখোঁজ থাকায় তার পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। একপর্যায়ে গত শনিবার সুবাশ ও মিলনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী  বেলা ১ টার দিকে শ্যামা সুন্দরী খাল থেকে  সোহেলের মস্তকবিহীন মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ওই দু’জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কোতোয়ালি থানা পুলিশের ওসি আবদুল কাদের  জিলানী জানান, আটকদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী নিহতে সোহেলের বন্ধু আসাদ ও বুড়াসহ আরও তিনজন এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল। মূলত অভ্যন্তরীন দ্বন্দ্বের জের ধরেই সোহেলকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও ওসি জানান।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য