SAM_4416 copyবীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ বীরগঞ্জ ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষক-কর্মচারীর বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। বীরগঞ্জ প্রেসক্লাব কার্যালয়ে উপজেলার বলরামপুর দাখিল মাদ্রাসার ছাত্রী বৃষ্টি খাতুন (রোল-৪২৩৭৬৯), লিজা আক্তার (রোল-৪২৩৭৮৪), সাহেলা আক্তার, (রোল-৪২৩৭৮৬), এসনারা আক্তার (রোল-৪২৩৭৭৫),  রুখসানা (রোল-৪২৩৭৭২), লিমা আক্তার (রোল-৪২৩৭৭৪), সুমি আক্তার (রোল-৪২৩৭৮৩), মোছাঃ আসরাতুন (রোল-৪২৩৭৭৮), নার্গিস আক্তার (রোল-৪২৩৭৮৫), জেসমিন আক্তার (রোল-৪২৩৭৭০), শরিফা আক্তার (রোল-৪২৩৭৮২), বুলবুলি আকতার (রোল-৪২৩৭৮৮), লুৎফা আক্তার (রোল-৪২৩৭৮০), শিরিনা আকতার (রোল-৪২৩৭৭৭), সেলিম রেজা (রোল-৪২৩৭৯৩), মমিনুর রহমান (রোল-৪২৩৭৯২)সহ অন্যান্যদের অতি গোপনে রসায়ন পরীক্ষার খাতায় দেয়া সঠিক উত্তর তড়িঘড়ি কেটে দিয়ে ঘষামাজা ও কাটাকাটি করে অকৃতকার্য করিয়ে দিয়েছে। ১৬জন মেধাবী শীক্ষার্থী বীরগঞ্জ ফাজিল মাদ্রাসার পরীক্ষা কেন্দ্রে বিভিন্ন দায়িত্বে নিয়োজিত প্রভাষক হাজী ফারুক হোসেন, ইদ্রিস আলী ও অফিস সহকারী আমিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করেন। তারা পরীক্ষা শুরুর আগে প্রত্যেক পরীক্ষার্থী ছাত্র/ছাত্রী’র জন্য মাদ্রাসা সুপার মমতাজুল করিমের নিকট পাশ করিয়ে দেয়ার শর্তে দুই হাজার টাকা দাবী করেন। অন্যথায় পরীক্ষার্থীর প্রকৃত ফলাফল পাল্টিয়ে দেওয়ার হুমকি প্রদর্শন করে। পরবর্তীতে অকৃতকার্য হলে পরীক্ষার্থীদের বোর্ড থেকে পাশ করিয়ে আনার আশ্বাস দিয়ে ছাত্রী অভিভাবকের নিকট ২০হাজার টাকা আদায় করেছে দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও কোন সফলতার সম্ভবনা না দেখে আমরা দোষীদের শাস্তির দাবীতে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট মাদ্রাসা বোর্ড কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
সকল পরীক্ষার্থীদের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মোছাঃ বৃষ্টি খাতুন এ সময় বলরামপুর মাদ্রাসার গভর্নিং বোডির সভাপতি আ’লীগ নেতা জিয়াউর রহমান জিয়া, নিজপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক মোঃ রহমত আলী, আ’লীগ নেতা আব্দুর রহিম, আযম আলী, অভিভাবক আব্দুল জব্বার, নাসরিন আকতার, ইনসান আলী, মতিন ইসলাম, জহুরুল ইসলাম, সুপার মমতাজুল ইসলাম, শিক্ষক জাহিরুল ইসলাম, নওয়াব আলী সরকার, আব্দুর রহমান, আব্দুল মান্নান, মাওঃ আব্দুল আউয়াল, লাইছুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য