Gaibandaগাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ ফুলছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের অসুস্থ সভাপতিকে হাসপাতালে দেখতে গিয়ে সুকৌশলে তার সাথে ছবি তুলে পোষ্টার ছাপিয়ে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। এই উপজেলার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কাউন্সিল ও সম্মেলনকে প্রভাবিত করার লক্ষে এই অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়।
বৃহস্পতিবার গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগে ফুলছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ আকবর হোসেন সরকার এক অভিযোগে এ তথ্য তুলে ধরেন। লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, অসুস্থতার খবর পেয়ে ফুলছড়ি-সাঘাটার এমপি অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়া, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক মাহমুদ হাসান রিপনসহ অসংখ্য নেতাকর্মী, শুভাকাংখি তাকে হাসপাতালে দেখতে যান এবং তাঁর চিকিৎসার খোজ খবর নেন। সেজন্য তিনি সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। কিন্তু পরবর্তীতে চিকিৎসা শেষে এলাকায় এসে দেখতে পান তাকে না জানিয়ে তার অজ্ঞাতে শুধু এমপি অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বির সাথে কৌশলে আমার ছবি তুলে বেশকিছু পোস্টার, লিফলেট ও প্যানা আকারে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে লাগানো হয়েছে।
তার অনুমতি ছাড়াই এমপির সাথে ছবি তুলে পোস্টার ছাপিয়ে ফুলছড়ি উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিল আহবান করায় তিনি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়। সেই সাথে যে সমস্ত  পোস্টার, লিফলেট ও প্যানা লাগানো বা টাঙানো হয়েছে সেগুলো আগামী তিনদিনের মধ্যে অপসারণ করার জন্য নির্দেশ দেন। অন্যথায় এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে মানহানির মামলাসহ প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
তিনি আরও উল্লেখ করেন, গাইবান্ধা জেলার সর্বশেষ বর্ধিত সভায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম হানিফ এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক রংপুর বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি ও অন্যান্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে ফুলছড়ি ও সাঘাটা উপজেলার আওয়ামী লীগের জটিলতার কারণে কাউন্সিল কবে, কখন ও কোথায় হবে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তেই বিষয়টি চুড়ান্ত হবে বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত একটি পত্র যথারীতি ফুলছড়ি ও সাঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগ বরাবরে প্রেরণ করা হয়েছে। এর বিপক্ষে এ দুটি উপজেলায় ইউনিয়ন পর্যায়ে কাউন্সিল বা সম্মেলন করা হলে তা হবে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তকে অবমাননা করা। মূলতঃ কতিপয় দুস্কৃতিকারী ও হাইব্রিড আওয়ামী লীগ দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে বিভ্রান্ত সৃষ্টি করে কাউন্সিলের নামে এ মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। ফলে এ নিয়ে দলে নানা বিশৃংখলাসহ চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। তাই এই সকল অপকর্ম থেকে বিরত থাকার জন্য দলের সকল নেতাকর্মীকে সংবাদ সম্মেলনে অনুরোধ করা হয়। সেই সাথে মুল আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থেকে সুবিধাবাদি, হাইব্রিড, দলছুট আওয়ামী লীগের নামধারী দুস্কৃতিকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ফুলছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক জি.এম সেলিম পারভেজ, যুগ্ম সম্পাদক অ্যাড. নুরুল আমিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. নয়া মিয়া, আব্দুর রহমান, ফিরোজ কবির সাকা, মো. তোফাজ্জল হোসেন, মাহমুদ হাসান সুজা, রাসেল বিন ওয়াহেদ ফিরোজ, জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য