1+hilaryআন্তর্জাতিক ডেস্ক: সাবেক মার্কিন ফার্স্ট লেডি হিলারি ক্লিনটন আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনি প্রচারণা শুরু করেন। তিনি নিউইয়র্কে প্রথমবারের মতো এক নির্বাচনি জনসভায় অংশ নেবেন। আমেরিকায় প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি মধ্যবিত্ত শ্রেণির অধিকার আদায়ের লড়াইয়ে শামিল হওয়ার অঙ্গীকার করতে পারেন।
ম্যানহাটন ও কুইন্সের মধ্যবর্তী ইস্ট রিভারের তীরবর্তী রুজভেল্ট দ্বীপে এ জনসভায় হিলারির হাজার হাজার সমর্থক উপস্থিত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। জনসভায় হিলারি তার স্বামী ও সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন ও মেয়ে চেলসিকে নিয়ে হাজির হতে পারেন।
সমাবেশের আগে প্রকাশিত এক ভিডিও বার্তায় হিলারি বলেছেন, মধ্যবিত্ত শ্রেণির অধিকার সুরক্ষার লড়াইয়ে শামিল হওয়ার জন্য তিনি প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হয়েছেন এবং তিনি তাদের সমস্যার ব্যাপারে যতœশীল।
সাতষট্টি বছর বয়সী সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, ‘প্রত্যেকে তার ঈশ্বর প্রদত্ত সম্ভাবনাকে জাগিয়ে তোলার সুযোগ চায়। স্বপ্ন বিনিময় করতে চায়।’
তিনি বলেন, ‘আমার বাবা ছিলেন একজন কারখানা শ্রমিকের ছেলে। তিনি একটি ছোট ব্যবসা করতেন। মা কখনো কলেজে যাননি। অথচ তিনি চেয়েছিলেন, তার মেয়ে কলেজে পড়াশোনা করুক।’
ভিডিওতে হিলারির চার দশকের বর্ণাঢ্য কর্মজীবনের ফিরিস্তি তুলে ধরা হয়েছে। গত সপ্তাহে সিএনএন পরিচালিত এক জনমত জরিপে দেখা গেছে, দেশের ৫৭ শতাংশ মানুষের ধারণা তিনি সৎ ও বিশ্বাসযোগ্য নন। গত মার্চে এ সংখ্যা ছিল ৪৯ শতাংশ। হিলারি বলেন, ‘প্রত্যেকদিন আমেরিকার নাগরিক ও তাদের পরিবারের সদস্যরা চ্যাম্পিয়ন হতে চায়। এমন চ্যাম্পিয়ন যাঁরা প্রতিদিন আমেরিকাবাসীর জন্য লড়াই করবে। আমিও সেইরকম চ্যাম্পিয়ন হতে চায়।’
নির্বাচনী প্রচারণা সংক্রান্ত মহিলা মুখপাত্র কারেন ফিন্নে সিএনএন’কে বলেন, এখন থেকে তার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যের প্রতি আলোকপাত করা হবে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য