IMG_7387 copyকাশী কুমার দাস॥ সরকারের একটি গুরুত্বপূর্ণ নীতি দলিল হলো বাজেট। রাষ্ট্রের নাগরিকদের সার্বিক সুবিধা ও সমঅধিকার প্রদানের উদ্দেশ্যে প্রতিবছর বাজেট ঘোষনা করা হলেও রাষ্ট্রীয় বাজেট নানা কারণে সকলের অধিকার সমানভাবে সংরক্ষন ও বাস্তবায়ন করতে ব্যর্থ হচ্ছে। বে-সরকারী ও বিদেশী বিনিয়োগ একই অবস্থায় থেকে যাওয়ায় কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়ছে না। নতুন অর্থ বছরে প্রস্তাবিত মোট বাজেট ঘরা হয়েছে ২ লাখ ৯৫ হাজার ১০০ কোটি এবং বাজেট ঘাটতি ধরা হয়েছে ৮৬,৬৫৭ কোটি টাকা। যা মেটাতে নির্ভর করতে হবে দেশীও এবং বিদেশী ঋণ ও অনুদানের উপর। এবার বাজেটে রাজস্বকরের উপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। করের পরিধি বাড়লেও প্রয়োজনীয় সেবা খাত বাস্তবায়নই হবে বড় চ্যালেঞ্জ।
শনিবার বালুবাড়ী এমবিএসকে মিলনায়তনে সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান, সুপ্র দিনাজপুর জেলা কমিটি আয়োজিত জেলা পর্যায়ে জাতীয় বাজেট-২০১৫-১৬ পরবর্তীতে আলোচনা সভায় আলোচকরা এই কথাগুলো বলেন। সুপ্র দিনাজপুর জেলা কমিটির সহ-সভাপতি রেজওয়ানূর রহমান এর সভাপতিত্বে মুখ্য আলোচক হিসেবে আলোচনা করেন দৈনিক উত্তর বাংলা’র নির্বাহী সম্পাদক জিনাত রহমান, বার্তা সম্পাদক ও ইউনিটি ফর এনজিও’স দিনাজপুরের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শাহ, অনুঘটক সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম বাবলু, শ্রমিক নেতা শহিদুল ইসলাম শহিদুল্লাহ, লেপ্রসি মিশনের পিসি প্রণয় রোজারীয়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সুপ্র জেলা কমিটির সদস্য সচিব মোঃ মতিউর রহমান। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন সুপ্র সদস্য ও সিডিসির নির্বাহী পরিচালক যাদব চন্দ্র রায়। মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন সিডিসির ডিআইআরএফ শৈলেন চন্দ্র রায়। প্রবন্ধের উপর মুক্ত আলোচনা করেন অনামিকা পান্ডে, সুপ্র সদস্য আফছার আলী, নারী নেত্রী সীমা, প্রতিবন্ধী নেতা ফরহাদ হোসেন, এনজিও কর্মী নয়ন দাস, সুপ্র সদস্য মোঃ জিল্লুর রহমান, রাসা’র নির্বাহী পরিচালক নূরুল ইসলাম ও কৃষিবিদ মোঃ জয়নাল আবেদীন।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য