সৈয়দপুরে অফিসে ঢুকে কর্মচারীকে মেরে ৪০ লাখ টাকা লুটসৈয়দপুরে অফিসে ঢুকে কর্মচারীকে মেরে ৪০ লাখ টাকা লুটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের বিসিক শিল্পনগরী সংলগ্ন আব্দুল্লাহ আল মেহেদীর অফিসে এ লুটের ঘটনা ঘটে। অভিযোগে জানা যায়, মানববন্ধনের অন্তরালে ৪০/৫০জনের সংঘবদ্ধ একটি বাহিনী হাতে লাঠি ও ধারালো ছুরি নিয়ে মেহেদীর বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। ইট, পাটকেল মেরে বাড়ির দ্বিতল ভবনের দামি গ্লাস ভাঙচুর করে। এ সময় একটি ১০০ সিসি সিটি বাজাজ মোটরসাইকেল ভেঙে চুরমার করা হয়। এরপর তারা অফিসে প্রবেশ করে অফিসের চেয়ার, টেবিল ভাঙচুর করে অফিস কর্মচারী রুবেল (২০) বেধড়ক ছুরি মেরে রক্তাক্ত করে ও রাকিবুল ইসলাম (২২) কে পিটিয়ে আহত করে অফিসের ড্রয়ারে রাখা ব্যবসার ৪০ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় রুবেল (২০)কে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে হাসপাতালে সে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। দুস্কৃতিকারীরা রুবেলকে হত্যার উদ্দেশ্যে দুই হাতে, পেটে, বুকে ও মাথায় ছুরি মারে। আহত রাকিবুল ইসলাম জানায়, ঘটনার সাথে কামারপুকুর সরকার পাড়ার খাদেমুল হক এর ছেলে আইনুল, মৃত মনছুর আলীর ছেলে মোজাহারুল ইসলাম, একই  এলাকার মনতাজ আলীর ছেলে নোমান, নিয়ামতপুর মুন্সিপাড়ার মৃত ইউসুফ আলীর ছেলে রশিদ, মৃত হানিফ উদ্দিনের ছেলে হোসেন আলী, নিয়ামতপুর সরকার পাড়ার মৃত- জহির উদ্দিনের ছেলে এরশাদ, আফজাল হোসেন মনু, মামুনসহ আরও কয়েকজন জড়িত ছিল। খবর পেয়ে থানা পুলিশ আসার পূর্বেই লুটকারীরা পালিয়ে যায়। প্রতিষ্ঠানের মালিক মেহেদী জানায়, ব্যবসায়িক কাজে আমি বাইরে থাকায় সন্ত্রাসীরা আমার টাকা লুট এবং কর্মচারীকে হত্যার উদ্দেশ্যে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন সৈয়দপুর থানা পুলিশ। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য