7+libyaআন্তর্জাতিক ডেস্ক: বাংলাদেশি শ্রমিকদের লিবিয়া প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে দেশটির স্থাথানীয় সরকার। সরকারের এক মুখপাত্র শনিবার জানিয়েছেন, নৌকায় করে অবৈধভাবে ইউরোপের দেশগুলোতে  প্রবেশের চেষ্টা করায় তারা এ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

লিবিয়ার সাবেক স্বৈরশাসক মুয়াম্মার গাদ্দাফিকে ক্ষমতাচ্যূত করার পর রাজনীতিক সহিংসতার কারণে গত চার বছর ধরে  মানব পাচারকারীদের প্রধান কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে দেশটি। তারা আফ্রিকার অভিবাসীদের এখান থেকে নৌকায় করে ইতালিতে পাচার করে থাকে।

শনিবার  লিবিয়া সরকারের মুখপাত্র হাতেম উরাইবি এক ঘোষণায় বলেছেন,‘বাংলাদেশি শ্রমিকদের লিবিয়া প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।’ তিনি প্রবাসী শ্রমিকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেছেন, তারা লিবিয়ার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে কাজ করতে আসার কথা বলে অবৈধভাবে ইউরোপ যাওয়ার চেষ্টা করে। তিনি এ বিষয়ে সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন,‘অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের অংশ হিসেবেই সরকার এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।’ তারা বাংলাদেশি শ্রমিকদের প্রবেশ ঠেকাতে সীমান্তবর্তী এলাকা, নৌবন্দর এবং বিমানবন্দরগুলোতে কড়াকড়ি আরোপ করবে। তবে কীভাবে  এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করা হবে এ বিষয়ে বিস্তারিত বলেননি তিনি।

গত আগস্ট মাসে একটি সশস্ত্র গোষ্ঠী লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলি দখল করে নেয়ার পর লিবিয়ার পশ্চিমাঞ্চলে সরকার প্রতিষ্ঠা করে বিদ্রোহীরা। এরপর থেকেই এ অঞ্চলটি পাচারকারীদের প্রধান কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। এখান থেকে তারা অভিবাসীদের নৌকাগুলো ইতালি উপকূলের দিকে ঠেলে দিয়ে থাকে। গত মাসে লিবিয়ার উপকূলে অভিবাসীদের একটি নৌকা ডুবে যাওয়ার ঘটনায় ৯শ মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল।

জাতিসংঘ উদ্বাস্তু বিষয়ক সংস্থা জানিয়েছে, এ বছর ভূমধ্যসাগর অতিক্রম করে ৫১ হাজার অভিবাসী ইউরোপে প্রবেশ করেছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য