9+turkyআন্তর্জাতিক ডেস্ক: আকাশসীমা লঙ্ঘণ করায় শনিবার সিরিয়ার এক হেলিকপ্টার গুলি করে ভূপতিত করার দাবি করেছে তুরস্ক। স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স। তবে আঙ্কারার এ দাবি নাকচ করেছে সিরিয়া সরকার।

ন্যাটো সদস্য তুরস্ক বরাবরই সিরীয় প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের কড়া সমালোচনা করে থাকে। দেশটির সঙ্গে ৯শ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত রয়েছে এবং প্রায়ই দেশ দুটির সরকার পরষ্পরের বিরুদ্ধে সীমানা লঙ্ঘণের অভিযোগ করে থাকে।

তুর্কী প্রধানমন্ত্রী আহমেদ দাভউতোগলু জানিয়েছেন, শনিবার সামরিক বাহিনীর জেটবিমান থেকে সিরীয় কপ্টারকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। দেশটির সশস্ত্র বাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে,‘ গুলি করার পর ওই আকাশযানটি সিরিয়ার সীমান্তবর্তী অঞ্চলে বিধ্বস্ত হয়। যারাই তুরস্কের স্থল কিংবা আকাশসীমা লঙ্ঘণ করার চেষ্টা করবে তাদের এভাবে শাস্তি দেওয়া হবে।’

শনিবার স্থানীয় সময় দুপুর দুইটার দিকে ওই হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয় বলে জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসমেত ইলমাজ। তিনি আরো জানিয়েছেন, এটিকে লক্ষ্য করে গুলি করার আগে ওই হেলিকপ্টারটি তুরস্কের আকাশসীমার সাত মাইল অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছিল এবং পাঁচ মিনিট ধরে অবস্থান করছিল।

তবে সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন এ খবরের সত্যতা অস্বীকার করে বলেছে, শনিবার গোয়েন্দা কাজে ব্যবহৃত তাদের একটি ড্রোন বিমান ভূপতিত হয়েছে।

এদিকে তুরস্কের হাতায় প্রদেশের প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, তুর্কী জেটবিমান থেকে একটি কপ্টারকে গুলি করার পর এটি সিরিয়ায় ভূপতিত হয়।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য