Hiliহাকিমপুর (দিনাজপুর) সংবাদদাতাঃ দিনাজপুরের হাকিমপুরের হিলি সীমান্তবর্তী ধরন্দা (ফকিরপাড়া) মহল্লার সায়েম (১৯) ৩ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ার পর অবশেষে মঙ্গলবার মৃত্যুর কাছে হার নেমেছে। রোববার বিজিবি সদস্যদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুত্বর আহত হবার পর একই দিন তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানোর পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানেই তার মৃত্যু ঘটেছে। সায়েম শফিকুল ইসলামের ছেলে। নিহতের স্ত্রীর ভাই হুমায়ন কবির তাঁর মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন।
হুমায়ন কবির আরো জানান, রোববার ভোর পৌনে ৫টার দিকে ধরন্দা মহল্লা সংলগ্ন সীমান্ত দিয়ে ৮/১০ জনের একদল চোরাকারবারী ভারত থেকে চোরাচালানীকৃত পণ্য পাচার করেন। এসময় সীমান্তে প্রহরারত হিলি আইসিপি বিওপির সদস্যরা তাদেরকে আটকের চেষ্টা করলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ঘের ঘটনা ঘটে। এসময় তাদের চিৎকারে সায়েমের ঘুম ভেঙ্গে গেলে সে বাড়ী থেকে বের হয়ে ঘটনাস্থলে গেলে বিজিবি সদস্যরা চোরাকারবারী সন্দেহ তার উপর হামলা চালিয়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুত্বর আহত করে তাকে ফেলে চলে যায়। এসময় তারা অপর আর এক যুবককেও কুপিয়ে আহত করে। এঘটনার প্রতিবাদে সোমবার সন্ধ্যায় হিলি চারমাথা মোড়ে ও হিলি সিপি রোডস্থ বিরামপুর টেম্পু ষ্ট্যান্ড মোড়ে এলাকাবাসীর পক্ষে বিক্ষোভ প্রদর্শন ও পিকেটিং করা হয়।
এ ঘটনায় বিজিবি হিলি আইসিপি বিওপির কোম্পানী কমান্ডার নায়েব সুবেদার আব্দুল জোব্বারের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতেই তারা আহত হয়েছে। মঙ্গলবার তার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সম্ভ্যাব অপ্রীতিকর ঘটনা এড়ানো লক্ষে হিলি চারমাথা মোড় ও সিপি রোডস্থ বিরামপুর টেম্পু ষ্ট্যান্ড মোড়ে থানা পুলিশের পাশাপাশি অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য