01_salmanবিনোদন: মুম্বাইয়ে গাড়িচাপা মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া ভারতীয় অভিনেতা সালমান খানের পাঁচ বছরের কারাদ- হয়েছে।
এর আগে বুধবার বেলা সাড়ে এগারোটায় ১৩ বছর ধরে চলতে থাকা মামলার চূড়ান্ত রায়ে সালমানকে দোষী সাব্যস্ত করে মুম্বাই আদালত। রায় শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন সালমানের দুই বোন অর্পিতা এবং আলভিরা।
সালমানের আইনজীবী এরপর এই অভিনেতার মানবসেবামূলক কাজ এবং শারীরিক অবস্থার কথা বিবেচনায় রেখে আদালতকে শাস্তি কমানোর আবেদন জানান। সালমান তার প্রতিষ্ঠিত দাতব্য সংস্থা বিয়িং হিউম্যানের মাধ্যমে গরীব, অসহায় এবং দুস্থ মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন – এমন বক্তব্য দিয়ে তাকে তিন বছরের বেশি কারাদ-ে দন্ডিত না করার আহ্বান জানান তিনি। তিনি আরও বলেন সালমানের অনুপস্থিতিতে বিয়িং হিউম্যানের কর্মকা- স্থবির হয়ে পড়বে।
“তাকে একজন অভিনেতা হিসেবে দেখবেন না… একজস সাধারণ মানুষ হিসেবে তাকে শাস্তি দিন। মামলার পুরো সময়টাতে তিনি একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবেই ভুগেছেন। তিন বছরের বেশি সময়ের জন্য তাকে কারাগারে পাঠাবেন না।”
আইনজীবী আরও বলেন, এর মধ্যেই দাতব্য কাজে ৪২ কোটি রূপির বেশি ব্যয় করেছেন সালমান।
২০০২ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর মধ্যরাতে সালমানের সাদা রঙের টয়োটা ল্যান্ড ক্রজার গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উঠে পড়ে বান্দ্রার একটি বেকারির সামনের ফুটপাতে। এই দুর্ঘটনায় ফুটপাতে শুয়ে থাকা এক ব্যক্তি নিহত হন এবং দুজন আহত হন। সালমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়, তিনি সে সময় মদপ্য অবস্থায় গাড়ি চালাচ্ছিলেন।
প্রথমে অবহেলাজনিত মৃত্যুর অভিযোগে সালমানের বিরুদ্ধে মামলা চললেও ২০১৪ সালের এপ্রিলে এই মামলায় নতুন করে বিচার শুরু হয়। এবার সালমানের বিরুদ্ধে আনা হয় দন্ডনীয় নরহত্যার (কাল্পেবল হোমিসাইড) অভিযোগ।
সেশন কোর্টের অতিরিক্ত বিচারপতি ডি ডাব্লিউ দেশপান্ডে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে রায় পড়ে শোনান। রায়ে বলা হয়, “অভিনেতার বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ সত্য প্রমাণিত হয়েছে।”
এরপর দেশপান্ডে কাঠগড়ায় উপস্থিত সালমানকে উদ্দেশ্য করে বলেন, “আপনি গাড়ি চালাচ্ছিলেন কোনো লাইসেন্স ছাড়াই এবং আপনি মদপ্য অবস্থায় ছিলেন।”  তিনি আরও বলেন, সালমানকে আর কোনো ক্ষতিপূরণ দিতে হবে না এই মামলায়।
দন্ডনীয় নরহত্যার অভিযোগ প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ দশ বছরের কারদন্ডের বিধান রয়েছে ভারতে। যেহেতু সালমানের তিন বছরের বেশি কারাদ- হয়েছে, এখন তাকে জামিনের জন্য উচ্চ আদালতে আপিল করতে হবে।
এদিকে মামলার শুনানি চলার সময় সালমান নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছিলেন। সে সময় সালমানের গাড়ি চালক অশোক সিং স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বলেছিলেন, দুর্ঘটনার সময় গাড়ি চালাচ্ছিলেন তিনি নিজে। আদালতে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপনের অভিযোগে অশোক সিং-এর বিরুদ্ধে মামলা হতে পারে বলে বাদী পক্ষের আইনজীবীরা জানান। এই অশোক সিংই বুধবার গাড়ি চালিয়ে সালমানকে আদালতে পৌঁছে দেন।
একশ’রও বেশি হিন্দি সিনেমায় অভিনয় করা সালমান খান এই মুহূর্তে বলিউডের সবচেয়ে দামি ও ব্যস্ততম তারকাদের একজন। বলা হচ্ছে, এই মুহূর্তে তার পেছনে প্রযোজকদের লগ্নিকৃত অর্থের পরিমাণ অন্তত ২০০ কোটি রুপি। সালমান সাতটি সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ রয়েছেন, যার মধ্যে দুটি সিনেমা আছে মুক্তির অপেক্ষায়।  এছাড়াও দশটি পণ্যের দূতিয়ালিও করেন তিনি।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য