Madok মাদকনবাবগঞ্জ সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন সড়ক মাদক পাচারকারীদের নিরপদ রুটে পরিণত হয়েছে। মাদক পাচারকারীরা ওই সব রুটে অবাধে বিভিন্ন কৌশলে নানা প্রকার যান বাহনে ওই সব মাদক অবাধে রাজধানী সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পাচার করছে। জানা যায় পাচার কারীরা হিলি ও বিরামপুর সিমান্তের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে মাদক নিয়ে পায়ে হেটে, মোটর সাইকেলে, প্রাইভেট কারে ও মাইক্রোবাসে করে নানা কৌশলে তা পাচার করছে। এছাড়াও পাচারকারীরা মাদক পাচার করে নিয়ে এসে উপজেলা  এলাকার কিছু কিছু গ্রামে মজুদ করে তা সুযোগ বুঝে অন্যত্র পাচার করে বলে সূত্র মতে জানা গেছে। মাদক পচারের কারণে এলাকায় সব সময়ই নানা প্রকার যানবাহন সহ অচেনা মানুষের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানালেন  মাদক পাচারকারী ও প্রস্ততকারী রা এক প্রকারা প্রকাশ্যে ওইসব ব্যবসা অবাধে করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে তাদের মধ্যে কেউ কেউ মাদক পাচারের সময় অন্যত্র গিয়ে প্রশাসনের হাতে ধরা পড়েছে এবং এখন জেল হাজতে রয়েছে। সূত্র মতে উপজেলা এলাকা এখন মাদক পাচারকারীদের অভয়ারণ্য হিসাবে পরিণত হয়েছে।এদের সহযোগিতা কারী হিসাবে কাজ করে যাচ্ছে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালীরা। তারা শুধু সহযোগিতায় নয় নিজেরাও এর সাথে জড়িত বলে জানা গেছে। বলা যেতে পারে মাদক পাচারকারীরা একপ্রকার বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। উপজেলার উপর দিয়ে দিবা-রাত্রী যে হারে মাদক পাচার হয় তার কিয়দাংশ প্রশাসনের হাতে ধরা পড়ে। যা ধরা পড়ে তা নিয়েও থেকে যায় বিতর্ক। যা ধরা পড়ে তার চেয়ে জমা হয় কম। নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রশাসনিক এক কর্মকর্তা জানান সোর্সকে দিতে হয় তাই জমা কম দেখা হয়। এলাকালার সচেতন মহলের  ভাষায় ওই শ্রেণির লোকদের সাথেই প্রশাসনের কোনো কোন অংশের বেশ সখ্য লক্ষ্য করা যায়। প্রশাসন ইচ্ছে করলে মাদক পাচার নিয়ন্ত্রণ খুব যে কঠিন কাজ তা নয়। বিনোদনগর ইউ,পি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম আক্ষেপ করে জানালেন মাদকের ব্যবহার এতটায় বেড়েছে যা মাদকের সাথে জড়িতদের নামের তালিকা না করে যাঁরা জড়িত নয় তাদের তালিকা করলে সেই তালিকা ছোট হবে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য