02 .Pakistanআন্তর্জাতিক ডেস্ক: পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় পেশোয়ার নগরীতে প্রবল ঝড় ও বৃষ্টির কারণে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৪৪ জন নিহত ও ১৮০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। বেশ কয়েকটি ভবন ধ্বসে পড়ার খবরও পাওয়া গেছে। পেশোয়ারের এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তথ্যগুলো নিশ্চিত করেছেন।
ঘটনাস্থল থেকে এএফপি’র এক প্রতিবেদক জানান, ঝড়ে গাছপালা, ভবনের ধ্বংসস্তুপ ও মোবাইল ফোনের টাওয়ার ভেঙে পড়ায় গুরুত্বপূর্ণ অনেক সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এ ছাড়া প্রবল বর্ষণের ফলে নগরীর কোথাও কোথাও প্রায় তিন ফুট পর্যন্ত পানি জমে গেছে।
স্থানীয় সরকারের সিনিয়র কর্মকর্তা রিয়াজ খান মেহসুদ এএফপিকে বলেন, ‘দুর্যোগে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৬ জনে এবং আহতের সংখ্যা বেড়ে ১৮০ জনে দাঁড়িয়েছে। এদিকে সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা ড. নিয়াজ সাজিদ হতাহতের এ খবর নিশ্চিত করেছেন। প্রাদেশিক আবহাওয়া বিভাগের পরিচালক মোস্তাক আলী শাহ এ ঝড়কে কম শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ের সাথে তুলনা করেছেন। ঝড়টি ঘন্টায় ১১০ কিলোমিটার বেগে বয়ে যায়।
তিনি আরো জানান, ঝড়টি দুর্বল হয়ে পড়লেও আগামি তিন থেকে চার ঘণ্টা প্রদেশের উত্তরাঞ্চলে প্রবল বর্ষণ অব্যাহত থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সেনামুখপাত্র এক টুইটার বার্তায় জানান, সামরিক বাহিনীকে উদ্ধার প্রচেষ্টা জোরদারের আহবান জানানো হয়েছে।
এদিকে প্রধানমন্ত্রী নেওয়াজ শরিফ প্রাণ ও সম্পদহানিতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের এক বিবৃতিতে বলা হয়, শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি তিনি শোক ও সমবেদনা জানান এবং প্রাদেশিক সরকার ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে উদ্ধার প্রচেষ্টা জোরদারের নির্দেশ দেন। উল্লেখ্য, পরমাণু শক্তিধর কিন্তু অর্থনীতিতে অনুন্নত পাকিস্তানে গত বছর মৌসুমি বর্ষণে ছাদ ধসে দু’শোরও বেশি লোকের প্রাণহানি ঘটে।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য