01.sabinaনতুন কোন অ্যালবাম প্রকাশ থেকে আপাতত দূরে থাকছেন উপমহাদেশের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন।এ বছর তিনি পরিবার ও টিভি অনুষ্ঠানগুলো নিয়েই ব্যস্ত থাকতে চান। কিন্তু কেন? সাবিনা ইয়াসমিন জানান, পাইরেসি ও প্রযোজক সংস্থাগুলোর অনীহার কারণে অ্যালবাম প্রকাশ করে শিল্পীরা খুব একটা লাভবান হতে পারেন না। তাই তিনি অ্যালবাম প্রকাশ থেকে কিছুটা দূরে রয়েছেন। তবে আগামী বছর তার নতুন একটি একক অ্যালবাম প্রকাশ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেই লক্ষ্যে চলতি বছরের শেষ দিকে নতুন অ্যালবামের কাজ শুরু করতে পারেন বলে জানিয়েছেন তিনি।
সাবিনা ইয়াসমিন আরো জানান, গানবিষয়ক রিয়েলিটি শোর বিচারক হওয়ার জন্য ইতোমধ্যেই কয়েকটি চ্যানেল থেকে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে তাকে। এর মধ্যে চ্যানেল আই ও এশিয়ান টিভিও রয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত বিষয়টি চূড়ান্ত করেননি তিনি। সাবিনা ইয়াসমিন অনেক আগেই ক্যান্সার আক্রান্ত শিশুদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। আর তাদের পাশেই আজীবন থাকতে চান। তিনি বলেন, “ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে, সবার দোয়ায় আমি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছি। আমি জানি, ক্যান্সার কী? মরণব্যাধি এ রোগটি সম্পর্কে আমাদের দেশের সাধারণ মানুষ অনেকেই অবগত নন। তা ছাড়া এ দেশের দরিদ্র মানুষ সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত। আমি এদের পাশে থেকে সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে চাই।”
গত বছর সাবিনা ইয়াসমিন ক্যান্সার নিরাময় আন্তর্জাতিক সংগঠন ‘ওয়ার্ল্ড চাইল্ড ক্যান্সার সোসাইটি’র শুভেচ্ছাদূত হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। এরপর থেকেই দেশ-বিদেশে মরণব্যাধি এ রোগ সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করছেন তিনি। শুধু তাই নয়, চিকিৎসাবঞ্চিত ক্যান্সার আক্রান্তদের দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে সবাইকে আহ্বানও জানাচ্ছেন সাবিনা।নতুন অ্যালবাম প্রকাশেওে নতুন কোন অ্যালবাম প্রকাশ থেকে আপাতত দূরে থাকছেন উপমহাদেশের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন।এ বছর তিনি পরিবার ও টিভি অনুষ্ঠানগুলো নিয়েই ব্যস্ত থাকতে চান। কিন্তু কেন? সাবিনা ইয়াসমিন জানান, পাইরেসি ও প্রযোজক সংস্থাগুলোর অনীহার কারণে অ্যালবাম প্রকাশ করে শিল্পীরা খুব একটা লাভবান হতে পারেন না। তাই তিনি অ্যালবাম প্রকাশ থেকে কিছুটা দূরে রয়েছেন। তবে আগামী বছর তার নতুন একটি একক অ্যালবাম প্রকাশ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেই লক্ষ্যে চলতি বছরের শেষ দিকে নতুন অ্যালবামের কাজ শুরু করতে পারেন বলে জানিয়েছেন তিনি।
সাবিনা ইয়াসমিন আরো জানান, গানবিষয়ক রিয়েলিটি শোর বিচারক হওয়ার জন্য ইতোমধ্যেই কয়েকটি চ্যানেল থেকে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে তাকে। এর মধ্যে চ্যানেল আই ও এশিয়ান টিভিও রয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত বিষয়টি চূড়ান্ত করেননি তিনি। সাবিনা ইয়াসমিন অনেক আগেই ক্যান্সার আক্রান্ত শিশুদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। আর তাদের পাশেই আজীবন থাকতে চান। তিনি বলেন, “ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে, সবার দোয়ায় আমি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছি। আমি জানি, ক্যান্সার কী? মরণব্যাধি এ রোগটি সম্পর্কে আমাদের দেশের সাধারণ মানুষ অনেকেই অবগত নন। তা ছাড়া এ দেশের দরিদ্র মানুষ সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত। আমি এদের পাশে থেকে সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে চাই।” গত বছর সাবিনা ইয়াসমিন ক্যান্সার নিরাময় আন্তর্জাতিক সংগঠন ‘ওয়ার্ল্ড চাইল্ড ক্যান্সার সোসাইটি’র শুভেচ্ছাদূত হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। এরপর থেকেই দেশ-বিদেশে মরণব্যাধি এ রোগ সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করছেন তিনি। শুধু তাই নয়, চিকিৎসাবঞ্চিত ক্যান্সার আক্রান্তদের দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে সবাইকে আহ্বানও জানাচ্ছেন সাবিনা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য