09. UNআন্তর্জাতিক ডেস্ক: হুতি ও তাদের মিত্রশক্তির ওপর জাতিসংঘ অস্ত্র-নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এর বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেছে শিয়া সশস্ত্র দলটি। মার্চ মাসের শেষাংশ থেকে সৌদি আরব ইয়েমেন হুতি অধ্যুষিত অঞ্চলে বোমাহামলা চালানো শুরু করে। তার প্রত্যুত্তর দিতে থাকে হুতি সশস্ত্র সেনারা। সামরিক শক্তির বিচারে আরব রাষ্ট্রগুলো হুতিদের তুলনায় এগিয়ে থাকায় ফলত হুতিরা পিছু হটতে শুরু করে।
জাতিসংঘের এ নিষেধাজ্ঞার ফলে হুতিদের অস্ত্রের চালানে ধস নামবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আরোপিত নিষেধাজ্ঞার কারণ হিসেবে জাতিসংঘ বর্ণনা করেছে ২৬ মার্চ সৌদি হামলার পর থেকে হুতিদের পাল্টা হামলায় এ যাবৎ ৭৩৬ জন নিহত ও অন্তত ২৭০০ আহত হয়েছেন, যাদের একটি বড় অংশ নারী ও শিশুসহ ইয়েমের বে-সামরিক নাগরিক।
জাতিসংঘে নিযুক্ত সৌদি দূত আব্দাল্লাহ আল মুয়াল্লিমিও জাতিসংঘের এ অস্ত্র-নিষেধাজ্ঞাকে বিমানহামলার পৃষ্ঠপোষকতা হিসেবে দেখছেন, তবে ইতিবাচক দিক থেকেই। সৌদিদের হামলাকে ‘অনৈতিক আগ্রাসন’ বলে অভিহিত করেছেন হুতিরা। সে আগ্রাসনের বিপরীতে কোনো পদক্ষেপ না নিয়ে পাল্টা হুতিদের ওপর অস্ত্র-নিষেধাজ্ঞা আরোপকে জাতিসংঘের একচোখা আচরণ এবং আগ্রাসনকে পৃষ্ঠপোষকতা দেয়ার নগ্ন প্রচেষ্টা হিসেবে বর্ণনা করেছে দলটি।
[ads1]
[ads2]

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য