Birgonj- 10.03.15 (2)বীরগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ বীরগঞ্জে খড়ি দিয়ে ইট পোড়ান হচ্ছে বিপন্ন হচ্ছে পরিবেশ অজ্ঞাত কারনে প্রশাসন নিরব দর্শকের ভুমিকা পালন করছে। উপজেলার মহনপুর ইউনিয়নের তুলশিপুর গ্রামে আবাদি জমিতে গড়ে উঠেছে ইটের ভাটা । মালিক নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে ইটভাটায় প্রতিদিন জ্বালানি কাঠ পোড়াচ্ছেন। ইটভাটায় কাঠ পোড়ানোর কারনে সৃষ্টি হচ্ছে কালো ধোঁয়ায় দূষিত হচ্ছে পরিবেশ । কালো ধোঁয়া পরিবেশ দুষিত করছে নষ্ট হচ্ছে আবাদি জমি, উজাড় হচ্ছে বন জংগল গাছপালা, ভারসাম্য হারাচ্ছে প্রকৃতি। সংবাদ পেয়ে সরজমিনে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়, ভাটায় অবাধে খড়ি পুড়ন হচ্ছে এতে কোটি কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার।পার্শবর্তি জমি মালিকদের অভিযোগ, ইটভাটা তৈরি হওয়ায় আবাদি জমি নষ্ট হচ্ছে। ইট তৈরীর মাটির প্রয়োজনে আবাদি জমির ২/৩ ফুট মাটি কেটে ইট তৈরি করে। এতে ফসলি জমির উরভরতা শক্তি হারাছে।  ইটভাটার নির্গত কালো ধোঁয়ায় এলাকার পরিবেশ ও আবাদি জমির ফসল নষ্ট হচ্ছে। ইট পোড়ানো নিয়ন্ত্রণ আইনে উল্যেখ রয়েছে, আবাদি জমিতে কোনো ইটভাটা তৈরি করা যাবে না, ১২০ ফুট চিমনি ব্যবহার করতে হবে এবং কাঠ পোড়ানো যাবে না। ইটভাটার নির্গত কালো ধোঁয়ায় মানুষের শ্বাসকষ্ট, হাঁপানি, ক্যান্সার সহ নানা রোগের সৃষ্টি হয়। তাছাড়া অতিরিক্ত কার্বন ডাই-অক্সাইডের কারণে ফসল ও এলাকার পরিবেশ নষ্ট হয়। নষ্ট হচ্ছে আবাদি জমি, উজাড় হচ্ছে গাছপালা, ভারসাম্য হারাচ্ছে প্রকৃতি। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী জেলা প্রশাসকের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য