6-texas-citizen-আন্তর্জাতিক ডেস্ক: টেক্সাসের এক আদালতের স্থগিতাদেশ থাকার পরও নিজের অভিবাসন পরিকল্পনায় অটল রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। এর পরিপ্রেক্ষিতে নথিপত্রহীন ৫০ লাখ অভিবাসীকে ফেরত পাঠানোর ব্যাপারে আদালতের নির্দেশ যেন বাস্তবায়ন করতে না হয় সেই উদ্যোগ নিয়েছেন ওবামা।

কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের ২৬টি রাজ্যের পাশাপাশি টেক্সাসের ফেডারেল আদালতও সোমবার ওবামার এই উদ্যোগের বিরুদ্ধে রায় দিয়েছে। বিবিসি বলছে, বুধবার অভিবাসীদের ফেরত পাঠানোর প্রথম পর্ব শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সামনে আইনি লড়াইয়ের জন্য ওই প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়েছে। তবে এই ইস্যুটির সমাধান হোয়াইট হাউসের পক্ষেই যাবে বলে মনে করছেন প্রেসিডেন্ট ওবামা।

হোয়াইট হাউসে এক সংবাদ সম্মেলনে ওবামা বলেছেন, “আদালতের আদেশের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে বলছি, আমি এই আদেশের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করি।” “আমি মনে করি আইন আমাদের পক্ষে আছে, ইতিহাসও আমাদের পক্ষে আছে,” বলেন তিনি। হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা বলেছেন, তারা “আইনিভাবে শক্ত অবস্থানে আছেন” এবং কয়েকদিনের মধ্যেই ওই সিদ্ধান্তের বিষয়ে জরুরি স্থগিতাদেশ চাইতে পারেন।

আদালতের ওই আদেশের বিরুদ্ধে বিচার বিভাগ আপিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে নথিপত্রহীন অভিবাসীদের বৈধতার আবেদন করতে সুযোগ দেয়ার একটি পরিকল্পনা স্থগিত করেছে ওবামা প্রশাসন।

আদালতে সোমবারের আদেশের কারণে যুক্তরাষ্ট্রব্যাপী ছড়িয়ে থাকা লাখ লাখ নথিপত্রহীন অভিবাসী ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। এদের মধ্যে ২০১০’র পরে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করা ২ লাখ ৭০ হাজার অভিবাসী তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

ওবামার অভিবাসননীতিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৫০ লাখ অবৈধ অভিবাসী কাজের বৈধতা পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারতেন। ২০১৪ সালের ২০ নভেম্বর ওবামা অবৈধ অভিবাসীদের জন্য এক নির্বাহী আদেশ জারি করেছিলেন। তার ওই আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে ৫০ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহিষ্কার করা যাবে না। ওবামার সেই আদেশের বিরুদ্ধেই আদালতের রায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য