কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় বাল্য বিবাহ দেওয়ার দায়ে ভ্র্যাম্যমান আদালত কর্তৃক ২ জনের জেল ও ৩ জনের জরিমানা করা হয়েছে। গত ৬/০৮/২০১৪ ইং তারিখে উপজেলার মাচাবান্দা নামাচর গ্রামের মো. নায়েব আলীর নাবালিকা কন্যা মোছাম্মত পারভিন আক্তারের সাথে একই এলাকার মো. রিয়াজুল হকের নাবালক ছেলে মো. সবুজ মিঞার বিবাহ রেজিস্ট্রেশন করেন স্থানীয় কাজি মো. রাগিব আহসান। গত ১২/০২/২০১৫ ইং তারিখে কলেমা পড়িয়ে তাদের বিবাহ মুসলিম শরিয়ত মোতাবেক আনুষ্ঠানিকভাবে সম্পন্ন করা হয়। সংবাদ পেয়ে গতকাল রোববার সকালে চিলমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী মেজিষ্ট্রেট স্থানীয় থানার সহযোগিতায় ছেলে ও মেয়ের বাবা, মেয়ের মামাসহ স্থানীয় কাজীকে তার দপ্তরে ধরে আনেন। পরে সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচার শেষে রায়ে, কাজি রাগীব হাসান ,ছেলের বাবা রিয়াজুল হক ও গ্রাম্য মাতব্বর মো. জামিউল ইসলামকে ১ হাজার টাকা জরিমানা,অনাদায়ে ১৫ দিনের কারাদ- প্রদান করা হয়।এছাড়াও মেয়ের বাবা মো. নায়েব আলী ও মামা হামিদুল ইসলামকে ১মাসের বিনাশ্রম কারাদ- দেওয়া হয়। রায়ে আরও বলা হয়, উপজেলার থানাহাট ইউনিয়ন পরিষদ থেকে দেওয়া জন্মনিবন্ধন পত্রের সাথে শিক্ষা গত সনদ পত্রে উল্লেখিত জন্ম তারিখের কোনো মিল না থাকায় থানাহাট ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরকে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য