নবাবগঞ্জ(দিনাজপুর)থেকে এম রুহুল আমিন প্রধান : দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনে জনবল সংকট চরম আকার ধারণ করেছে । সরকারি অফিসের বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করা কঠিন হয়ে পড়েছে। এমনকি অফিস সহকারি , অফিস সুপারেনটেন্ট ইউএনওর গোপনীয় শাখার সহকারি (সিএ) ,উপজেলা সার্টিফিকেট সহকারি না থাকায় উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরের কাজ নিয়ে শুরু হয়েছে জটিলতা । যথা সময়ে জনসাধারনের কার্যক্রম ধুবড়ে পড়েছে। খোজ নিয়ে জানা গেছে ওই অফিসের টেকনেশিয়ান দ্বারা অতিব গুরুত্বপূর্ন সরকারি কাজ দায়সারা ভাবে করা হচ্ছে। এ কারণে দিন যাচ্ছে কাজ হচ্ছে কম। যথা সময়ে সেবা থেকে ও বঞ্চিত রয়েছেন জনসাধারণ । এ দিকে অফিসে গিয়ে দেখা গেছে খোদ উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজেই বিভিন্ন দাপ্তরিক কাজ করে যাচ্ছেন । শুধু এখানেই শেষ নয় উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তার দপ্তরেও একই অবস্থা। প্রতিদিন উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে শত শত মানুষ জমি সংক্রান্ত খাজনা খারিজ ,ডিসিআর, মিসকেস সহ বিভিন্ন কাজ করতে আসে ভূমি অফিসে । এখানেও নেই চাহিদা মাফিক জনবল । এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইসরাইল হোসেন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান যথাযথ ভাবেই অর্পিত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন তবে কেউ হয়রানি হচ্ছেনা। জানা গেছে  উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ মোঃ ফরহাদ হোসেন বদলী হওয়ার পর থেকেই জন বল সংকট দেখা দিয়েছে। এলাকার সচেতন ব্যাক্তিবর্গ ইউপি চেয়ারম্যান সহ সকল পেশা জীবী দাবী উপজেলা পরিষদে জনবল নিয়োগ দেওয়ার জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য