একরামুল হক বেলাল,পার্বতীপুর(দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ পার্বতীপুর রেল জংশন ষ্টেশনে যাত্রীবাহী ট্রেনের লোকোমোটিভ মাষ্টারের দক্ষতার কারনে মুখোমুখি সংঘর্ষের হাত থেকে রক্ষা পেল সেভেন আপ ট্রেনের যাত্রীরা।
জানা যায়, বগুড়া থেকে আগত দিনাজপুরগামী সেভেন আপ মেইল ট্রেনটি গত রবিবার রাত ৭টায় ৩০ মিনিটে খোলাহাটি রেল ষ্টেশন থেকে ছেড়ে পার্বতীপুর রেল জংশন ষ্টেশনের ৫ নম্বর লাইনে ৩ নং প্লাটফরমে ষ্টাটার সিগনাল পার হয়ে প্রবেশের সময় যাত্রী বোঝাই সেভেন আপ ট্রেন ইঞ্জিনের (২৩১০)মজিবর রহমান টি/নং ৯৮ লোকোমোটিভ মাষ্টার একই লাইনে আর একটি রেল ইঞ্জিন দাঁড়িয়ে আছে। এ সময় তিনি অত্যন্ত দক্ষতার সাথে দ্রুতগতিতে ট্রেনটি দাঁড় করিয়ে দেন। দেখতে পায় যে, একই লাইনে আর একটি ডেথ(বন্ধ)ইঞ্জিন ২৩০৫ দাড়িয়ে রয়েছে। এ নিয়ে পার্বতীপুর সুইজ কেবিনের (সিএসএম) আব্দুর রাজ্জাক বলেন, উক্ত লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা ইমারজেন্সী পাইলট(২৩০৫)টি ৫ নং লাইনে যেতে বলেছি। আর এদিকে খোলাহাটি থেকে ছেড়ে আসা সেভেন আপ ট্রেনটিকে একই লাইনে প্রবেশের জন্য লাইন ক্লিয়ার দিয়েছি। কিন্তু ইমারজেন্সী পাইলটটি না যাওয়ায় এ বিড়াম্ভনা হয়েছে। ইমারজেন্সী পাইলট(২৩০৫)এর লোকোমোটিভ মাষ্টার আলমগীর হোসেন টি/১৮৭ বলেন সিএসএম ৫ নং লাইন থেকে সরে যেতে বলেনি। আমাকে লাইন ক্লিলিয়ারেন্স দেয়ার পর আমি ইঞ্জিন নিয়ে সরে যাই।
এদিকে সেভেন আপ ট্রেন ইঞ্জিনের লোকো মাষ্টার মজিবর রহমান জানালেন, আউটার ও হোম সিগ্যনাল ক্লিয়ার থাকার পর আমি ট্রেন নিয়ে প্রবেশের সময় এ ঘটনা দেখতে পেয়ে দ্রুতগতিতে ট্রেনটি থামিয়ে দেয়। তিনি আরো জানান, সিএসএম এর ভুল। একটি বড় দূর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেল ট্রেন যাত্রীরা। আব্দুর রাজ্জাক রেলওয়ে ষ্টেশন মাষ্টার ছাড়াও তিনি পার্বতীপুরে শহরের বহুমুখি উন্নায়ন সমিতির নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক। সমিতি নিয়েও সব সময় নানা ঝামলায় থাকতে হয়। ২৫ মিনিট বিলম্ভের পর আব্দুর রাজ্জাক ভুল বসত সিগ্যনাল দেয়া হয়েছে এই মর্মে লিখিত নিয়ে লোকোমোটিভ মাষ্টার মজিবর রহমান ট্রেনটি নিয়ে ষ্টেশনে প্রবেশ করেন। ট্রেনের পরিচালক নুরুল ইসলাম বলেন, ড্রাইভারের সর্তকতা ও সিএসএম এর ভুলের কারনে আজ একটি বড় ট্রেন দূর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেল সেভেন আপ ট্রেনের যাত্রীরা। এ নিয়ে পার্বতীপুর ষ্টেশন মাষ্টার জিয়াউল আহ্সান বলেন, বিষয়টি আমি কিছুই জানি না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য