আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাছের পাতা দিয়ে হরেক রকম আকর্ষণীয় ফুল তৈরি করে যিনি জীবিকা নির্বাহ করেন গ্রাম-গঞ্জের সেই অবহেলিত কারিগর সোহরাব হোসেন। গাইবান্ধার পৌষ, বৈশাখী এবং চৈতালি মেলাগুলোতে তার এই ফুলের ব্যাপক চাহিদা। খেজুর, তাল এবং সুপারি গাছের কচি পাতা দিয়ে অপূর্ব কৌশলে তিনি এসব ফুল বানান।তার সাথে কথা বলে জানা গেছে, সোহরাব হোসেনের বাড়ী নওগাঁ জেলার। গ্রামে-গঞ্জে ও বিভিন্ন জেলার মেলাগুলোতে ঘুরে বেরিয়ে তিনি তার পাতার ফুল বিক্রি করেন। এটাই তার এখন পেশা। সোহরাব জানালেন, তিনি প্রায় ২৪ রকমের ফুল বানাতে পারেন। ক্রেতার চাহিদ মতো তাদেরকে সামনে বসিয়েই দ্রুত নিপুন গাঁথুনীতে অনায়াসে তিনি বানিয়ে দেন পছন্দের ফুল। প্রতিটি ফুল বিক্রি হয় ৪০ থেকে ১শ’ ২০ টাকা দরে। প্রতিদিন সোহরাব ২০ থেকে ২৫টি ফুল বানাতে পারেন। কিন্তু বিক্রি হয় ১০টি থেকে ১৫টি। এ ফুল বিক্রিতে যে রোজগার হয় তা দিয়ে তার খাওয়া এবং থাকা খরচ চালিয়ে যা বাচে তা তিনি পাঠিয়ে দেন গ্রামের বাড়ীতে স্ত্রী ও সন্তানদের জীবিকা নির্বাহের জন্য। সোহরাব জানালেন, সরকার থেকে তাকে যদি কোন স্বল্প সুদে ঋণ দেয়া হতো তবে একটি স্থায়ী দোকান গড়ে তুলে তিনি শুধু পাতার ফুলই নয়, কাগজ, প্লাষ্টিক এবং রঙ্গীন কাপড় দিয়েও নানা ফুল বানিয়ে জীবন জীবিকা নির্বাহ করতে পারতেন।



 

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য