বেলাল উদ্দিন, দিনাজপুরঃ সরকারি ফি জমা দিয়েও পাওয়া যাচ্ছে না পরিবেশ ছাড়পত্রের নবায়ন কপি। পরিবেশ অধিদপ্তর কর্তৃক ছাড়পত্র নবায়ন না হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন দিনাজপুর জেলার কলকারখানা ও ইটভাটার মালিকরা।

সরকারি ফি’র পাশাপাশি সেলামী না দিলে ঘুরতে হবে দিনের পর দিন এটাই নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। পরিবেশ অধিদপ্তরের কার্যালয় রংপুরের হওয়ায় বারে বারে যাওয়া-আসা করতে পারছেন না গ্রাহকরা। এব্যাপারে সরকারের শুভদৃষ্টি কামনা করছেন ভূক্তভোগীরা।

কলকারখানা, ইটভাটা, ঔষুধ কারখানা, নানা ধরনের কেমিক্যাল কারখানা, তেলমিল, রাইসমিলসহ নানা ফ্যাক্টরী স্থাপনে প্রয়োজন পরিবেশ ছাড়পত্র। এ ছাড়পত্র হালনাগাদ না থাকলে গ্রাহককে পড়তে হয় নানা সমস্যায়। নির্ধারিত সরকারি ফি জমা দিয়েও অন্তত ৬ মাস কিংবা ১ বছরেও পাওয়া যায় না ছাড়পত্রের নবায়ন কপি।

এর মূল কারণ হচ্ছে সরকারি ফি ছাড়াও দিতে হয় ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার পর্যন্ত সেলামী। রংপুর পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে একজন ইন্সপেক্টর এসে কলকারখানা পরিদর্শন করে যায়। পরে সরকারি ফি ব্যাংকে জমা দেওয়ার পর পাওয়া যায় ছাড়পত্রের নবায়ন কপি। কিন্তু সেলামী না দিলে মাসের পর মাস ধরে পরিদর্শন রিপোর্টটি পড়ে থাকে ফাইলবন্দি অবস্থায় বলে ভূক্তভোগীরা জানান।

ছাড়পত্র নবায়ন না থাকলে ভ্রাম্যমান আদালতকর্তৃক অভিযানকালে বিভিন্ন সময় মোটা অংকের টাকা সরকারি খাতে জরিমানা দিতে হয়। অনেক সময় যেতে হয় জেল হাজতে। এই নিয়মরীতি দীর্ঘদিন থেকে চলে আসলেও উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ কেউ এগিয়ে আসছে না। এব্যাপারে ভূক্তভোগী গ্রাহকরা সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।

 

 
 





মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য