পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলায় হলুদ সাংবাদিকাতর ব্যাপক আবির্ভাব লক্ষ্য করা গেছে। এসব হলুদ সাংবাদিকরা বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে, সাধারন মানুষদের ভয়-ভীতি দেখিয়ে পত্রিকায় প্রকাশ না করার শর্তে চাঁদা আদায় করে বলে অভিযোগ উঠেছে। জানাগেছে, উপজেলার জনৈক এক সাংবাদিক নিজের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য এলাকার উঠতি বয়সের যুবকদের ভূলিয়ে ভালিয়ে সাংবাদিকতার পরিচয় পত্র প্রদানের অঙ্গীকার করে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে। আশ্চর্যের বিষয় হলো যে, ঐ ধুরন্দর সাংবাদিক এই এলাকার এমনি কিছু ব্যক্তিকে সাংবাদিকতার পরিচয় পত্র প্রদান করছে যে, তাদের অধিকাংশই ৫ম শ্রেনী বা, ৮ম শ্রেনী পাশ।
শুধু তাই নয়, ঐ সাংবাদিক আটোয়ারী সেটেলম্যান অফিস সহ বিভিন্ন দপ্তরে হুমকি ধামকি দিয়ে দালালি সহ নিয়মিত চাঁদা দাবী করছে। চাঁদা দিতে কেউ অস্বীকার করলে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করার ঘটনাও ঘটেছে। মজার বিষয় হলো যে, ঐ সাংবাদিক নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রমান পত্র জালিয়াতি করে (বিএ) পাশ মর্মে পত্রিকায় আবেদন করে সাংবাদিকতা পেশা চালিয়ে যাচ্ছে। মূলত ঐ সাংবাদিক ৮ম শ্রেনী পাশ। সাংবাদিকতা পেশা মহান পেশা।  এদেরকে জাতির বিবেক বলা হয়। সংশ্লিষ্ট পত্রিকার সম্পাদকদের প্রতি এলাকাবাসীর দাবী মহান সাংবাদিকতা পেশা অটুট অক্ষুন্ন রাখতে আটোয়ারী উপজেলায় নিয়োগ প্রাপ্ত সকল সাংবাদিক গণের শিক্ষাগত যোগ্যতার মূল সার্টিফিকেট প্রদর্শন পূর্বক মহান এই পেশায় নিয়োগ দিন। নইলে ধ্বংস হয়ে যাবে এই মহান পেশা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য