দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায় গত কয়েক দিনের ঘন কুয়াশা আর শীতল বাতাসের কারণে শীতের তীব্রতা  বেশ বৃদ্ধি পাওয়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। দরিদ্রদের মাঝে তিরনের জন্য কর্মকর্তার দপ্তরে রয়েছে। দিনের সিংহভাগ সময় সূর্যের আলো দেখা যাচ্ছে না। শীতের কারনে মানুষ জরুরী কাজ ছাড়া ঘরের বাহির হচ্ছে না। শীত জনিত কারনে সব বয়সী মানুষের মাঝে সর্দি কাশি রোগ ধরছে। রোগে আক্রান্ত হচ্ছে বোরো বীজ সহ আলু ক্ষেত। এদিকে শীত বস্ত্র শীতার্থদের মাঝে বিতরনের আসলেও তা রয়েছে কর্মকর্তার দপ্তরে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান সরকার জানান চলতি শীত মৌসুমে সরকারী ভাবে ২ দফায় ১৭২৬ টি কম্বল বরাদ্দ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ১ম বার বরাদ্দ পাওয়া ৫৮৩ টি কম্বল বিতরন করা হয়েছে। ২য় বার বরাদ্দ পাওয়া ১১৪৩ টি কম্বল এখনও বিতরন করা হয়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য