জুভেন্টাসের রাজত্বের অবসান ঘটালো নাপোলি। গত সোমবার নাটকতীয়ভাবে টাই ব্রেকারে জুভেন্টাসকে হারিয়ে ইতালিয়ান সুপার কাপের শিরোপা জয় করে নিল তারা। দোহায় লড়াইটা ছিল দুই আর্জেন্টাইনেরও। জোড়া গোল করে দুইবার জুভেন্টাসকে এগিয়ে নেন আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার কার্লোস তেভেজ। তবে নাপোলির আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড হিগুয়েনও লড়েছেন সমান তালে। জোড়া গোল করে দলকে সমতায় ফিরিয়েছেন। অবশেষে পেনাল্টি শ্যুট আউটে দলকে জয় এনে দিয়ে নাপোলির শিরোপা জয়ের নায়কে পরিণত হন গোররক্ষক রাফায়েল। নির্ধারিত ও অতিরিক্ত তিরিশ মিনিটে ২-২ গোলে সমতার পর দুটি শট আটকে দিয়ে ৬-৫ ব্যবধানের জয় এনে দলকে। আর সিরি এ চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে শিরোপার স্বাদ পায় নাপোলি। তবে দুর্ভাগ্যই সঙ্গী ছিল জুভেন্টাস তারকা গোলরক্ষক বুফনের। টাই ব্রেকারে তিনটি সেভ করেও দলকে শিরোপা উপহার দিতে পারেননি ইতালির সেরা এই গোলরক্ষক। ম্যাচ শুরুর পাঁচ মিনিটের মধ্যেই এগিয়ে যায় জুভেন্টাস। নাপোলির ডিফেন্ডারদের ভুলে বল পেয়ে এসময় গোল করেন তেভেজ। প্রথমার্ধে গোলের সুযোগ পেয়েছিল নাপোলিও। কিন্তু সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি তারা। ফলে প্রথমার্ধে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে মাঠ ছাড়ে জুভেন্টাস। দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণ ও প্রতিআক্রমণে জমে ওঠে লড়াই। ৬৮তম মিনিটে ক্রিস্টিয়ান মাজ্জোর ক্রসে হিগুয়েন হেড নিয়ে ম্যাচে সমতা ফেরান। ফলে আবারও আক্রমণে মনোযোগ দেন আলেগ্রির শিষ্যরা। তবে নব্বই মিনিটের খেলা ১-১ সমতায় শেষ হলে খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয়ার্ধে আবারও গোল করে তেভেজের গোলে এগিয়ে যায় জুভেন্টাস (২-১) । তবে কিছু সময় পরই হিগুয়েনের গোলে সমতায় ফেরে নাপোলি। অতিরিক্ত তিরিশ মিনিটের খেলাও সমতায় শেষ হলে টাই ব্রেকারে নির্ধারিত হয় ফলাফল। টাই ব্রেকারে প্রথম শটে নাপোলির জর্জিনিয়োর শট ফিরিয়ে দেন জুভেন্টাসের গোলরক্ষক বুফন। তারপর তেভেজের শট বারে লাগায় প্রথম শটে গোল পায়নি জুভেন্টাসও। পরের চার শট জালে জড়ায়। ফলে ৪-৪ সমতায় খেলা গড়ায় সাডেন ডেথে। সাডেন ডেথেও নাটকীয়তা উপহার দেয় প্রদ্বিন্দ্বিতাপূর্ণ এই ম্যাচ। নাপোলির পক্ষে মার্টেনসের শট ফিরিয়ে দেন বুফন। কিন্তু জুভেন্টাসের পক্ষে কিয়েলিনির শটও ঠেকিয়ে দেন নাপোলির গোলরক্ষক রাফায়েল। পরের বারও টাই ব্রেকার শট আটকে দলকে সুযোগ এনে দেন বুফন। এবার কালেজনের শট ফিরিয়ে দেন তিনি। তবে এবারও বাইরে মেরে জুভেন্টাসের ভক্তদের হতাশ করেন পেরেইরা। তবে পরের শটে জুভেন্টাসের জালে বল জড়ালেও পাডোনির শট ফিরিয়ে দলকে শিরোপা এনে দেন নাপোলির গোলরক্ষক রাফায়েল। ফলে জয় নিয়ে শিরোপা জয়ের উল্লাসে মাতে নাপোলির খেলোয়াড়রা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য