নীলফামারীর ডোমার উপজেলার চিলাহাটিতে সড়ক দুর্ঘটনা এক গৃহবধূ নিতহ। ইউপি চেয়ারম্যানের মধ্যস্ততায় আপস মীমাংসা। ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার চিলাহাটি-গোসাইগজ্ঞ মুক্তিরহাট সড়কের নেংড়ির মোড় নামক স্থানে উপজেলার ভোগডাবুড়ি ইউনিয়নের গোসাইগজ্ঞ ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলাম স্ত্রী আফিয়া খাতুন (৩০ কে নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি যাওয়ার পথে বিপরিদ দিক থেকে আসা একটি ওষুধ কোম্পানির কাভার্ডভ্যান (যাহার নং ঢাকা মেট্রো ম-১১-২৫৮৪) ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই আফিয়া খাতুনের মৃত্যু ঘটে। এলাকাবাসী ঘাতক গাড়িটিকে আটক করে ভোগডাবুড়ি ইউপি কার্যালয়ে নিয়ে আসার পর ইউপি চেয়ারম্যান মেম্বার ও স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের মধ্যস্ততায় আপস মীমাংসা হয়। এ ব্যাপারে ভোগডাবুড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু তাহেরের সাথে কথা বললে তিনি জানান, উভয়ের মধ্যে কোন দাবিদাবা না থাকায় আপস মীমাংসা হয়েছে। তাই লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই বুধবার দাফন করা হয়েছে। এব্যাপরে চিলাহাটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের তদন্ত কর্মকর্তা মনছুর আলীর সাথে কথা বললে তিনি দুর্ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে। তাকে ময়নাতদন্তের কথা বলা হলে তিনি পানিতে পরা ও দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার লাশ ময়নাতদন্ত করা বাঁধ্যতামূলক নয় বলে তিনি জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য