কাশী কুমার দাসঃ দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক আহমদ শামীম আল রাজী বলেছেন প্রতিটি মানুষকে তার সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে মূল্যায়ন করা উচিত। এতে প্রেরণা যেমন বাড়বে তেমনি ভাল কাজে অনেকেই এগিয়ে আসবে। আমরা চাই সোনার দেশে সোনার মানুষ হয়ে দিনাজপুরের যুবকরা সর্বক্ষেত্রে অবদান রাখুন।

বুধবার দিনাজপুর জিমন্যাসিয়াম ভবনে দিনাজপুরের ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়বৃন্দ আয়োজিত ক্রীড়াঙ্গণে বিশেষ সাফল্যের স্বীকৃতি স্বরূপ দিনাজপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুব্রত মজুমদার ডলারকে মাদার তেঁরেসা অ্যাওয়ার্ড-২০১৪ প্রাপ্তিতে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথাগুলো বলেন।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আবু রায়হান মিয়ার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ এনামুল হক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সঞ্জয় সরকার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ও দিনাজপুর ব্যাডমিন্টন ফাউন্ডেশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডাঃ আমির আলী।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি আজিজার রহমান, জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক বেগম জিনাত আরা চৌধুরী মিলি। ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়দের পক্ষে ফুলের তোড়া দিয়ে সুব্রত মজুমদার ডলারকে বরণ করেন সাজেদুর রহমান শিলু ও জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশনের  চিকিৎসক ডাঃ মোঃ ফইজুল ইসলাম। সুব্রত মজুমদার ডলার তার অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, এই অ্যাওয়ার্ডটি আমার ব্যক্তিগত সাফল্য নয়। এটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাফল্য।

প্রতিটি ক্ষেত্রে আমাদের খেলোয়াড়রা প্রতিনিয়ত সাফল্য আনছে। এই পুরস্কার তারই অর্জন। উল্লেখ্য গত ২৮ নভেম্বর ঢাকা পুরানা পল্টনস্থ মুক্তি ভবন মিলনায়তনে বাংলাদেশ মেধা বিকাশ সোসাইটির পক্ষ থেকে প্রধান অতিথি যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উপ-মন্ত্রী আরিফ খান জয়কর্তৃক সুব্রত মজুমদার ডলার ক্রীড়াঙ্গণে বিশেষ সাফল্যের স্বীকৃতি স্বরূপ মাদার তেঁরেসা অ্যাওয়ার্ড ২০১৪ প্রাপ্তি হন। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন মোঃ শামীম কবীর।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য