রংপুরে যুবলীগ নেতা ইমরান আলী হত্যাকান্ডের ঘটনায় এজাহারভূক্ত দুই আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শনিবার রাত ১২ টা থেকে ২ টা পর্যন্ত ঢাকার সিদ্দিরগঞ্জ ও ডিএমপির দক্ষিণ খান থানা এলাকায় পৃথক দু’টি অভিযান চালিয়ে শহিদুল ও শাহারুল নামে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত শহিদুল রংপুর নগরীর তাজহাট এলাকার মৃত আব্দুল কাদেরের এবং শাহারুল একই এলাকার গোলাম মোস্তফার পুত্র।
রবিবার বিকেলে কোতয়ালী থানায় এক প্রেস ব্রিফিং এ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল ফারুক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রংপুর জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল-এ) হুমায়ুন কবীরের নেতৃত্বে এসআই হারেস সিকদার ও  শফিক সিদ্দিরগঞ্জ থানা পুলিশের সহায়তায় অভিযান চালিয়ে মৌচাক এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে  শহিদুলকে এবং ডিএমপির দক্ষিণ খান থানার নাউয়াডাঙ্গা মাদরাসার কাছে একটি বাসা থেকে শাহারুলকে গ্রেফতার করে।
এ বিষয়ে রংপুর পুলিশ সুপার আব্দুর রাজ্জাক পিপিএম জানান, ইমরান হত্যাকা-ের ঘটনায় আসামীদের ধরতে পুলিশী তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় এজাহারভূক্ত উল্লেখিত দুই আসামীকে গ্রেফতার করতে পুলিশ সক্ষম হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
প্রসঙ্গতঃ গত ১০ নভেম্বর রাত আড়াইটার দিকে সাতমাথা এলাকায় সন্ত্রাসীদের আঘাতে নিহত হন  ইমরান। এ ঘটনায় ১১ নভেম্বর নিহত ইমরানের ছোট ভাই বিপ্লব বাদী হয়ে রংপুর জেলা ও বিভাগীয় মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এম এ মজিদকে প্রধান আসামি করে ১১ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত নামা ১০/১৫ জনের বিরুদ্ধে কোতয়ালী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
মামলা দায়েরের পর পুলিশ এর আগে ৮ জনকে গ্রেফতার করলেও শনিবার রাতে এজাহারভূক্ত দুই আসামীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য