দেলোয়ার হোসেন বাদশা, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দর সেটেলমেন্ট অফিসের কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। জোনাল সেটেলমেন্ট অফিস, দিনাজপুর জোন, দিনাজপুরের অভিযোগে প্রকাশ, গত ২০০৮ ইং সালে চিরিরবন্দর সেটেলমেন্ট অফিসে দক্ষিণ নগর মৌজার ৩০ ধারা কেস দাখিল করা হয় ততকালীন পেশকার আবুল কালাম আজাদকে। বাদী মোস্তফা, যার কেস রশিদ নং ১৭৮। বিবাদী জিল্লুর রহমান গং, ডিপি খং নং-৫০৩। বাদী হাসিনা বানু, যার কেস রশিদ নং ১৫৫। বিবাদী আব্দুল হামিদ, ডিপি খং নং-৩২৩। বাদী এহিয়া, যার কেস রশিদ ন ৪৩৯। বিবাদী গয়েশ্বর দত্ত, ডিপি খং নং-৩৮৫। উল্লেখ্য যে, বর্তমান দক্ষিণ নগর মৌজার আপত্তি অফিসার মো: আব্দুস সাত্তার। এ বিষয়ে তার সাথে যোগাযোগ করে জিআর ফাইল ও মৌজা ওয়ার্ড  নাম ভূক্ত রয়েছে বলে জানানো হয়। পরবর্তীতে জানতে পারি উক্ত কেস নং ও নামীয় বাদী-বিবাদীর নাম কর্তন করিয়া অফিস থেকে বাদ দিয়ে ওই কেস নম্বরে অন্য বাদী-বিবাদীর নামে নোটিশ করা হইয়াছে। এ বিষয়ে পেশকার আব্দুল কুদ্দুস ও আপত্তি অফিসার আব্দুস সাত্তারকে জানালে তারা এ নম্বার ও কেস সম্পর্কে কিছুই জানেনা। উল্লেখ্য যে, প্রায় এক মাস পূর্বে আবারও অফিসের কর্মরত মো. আবু তালেবকে পারমিশন কেস করার জন্য টাকা দেই। তদুপরি কোন কেস নং ও নম্বর এখন পর্যন্ত দেয়নি। বাদীগণ জোনাল সেটেলমেন্ট অফিস, দিনাজপুর জোন, দিনাজপুরে গত ১১ নভেম্বর অভিযোগে করেও  এ পর্যন্ত কোন সুরাহা পায়নি। এ বিষয়ে অভিযোগকারীরা সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উর্দ্ধতন কর্মকর্তার সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য