আল্লাহ ও নবী-রাসূল (সাঃ) কে জড়িয়ে পবিত্র হজ্ব ও তাবলীগ জামাত নিয়ে কটুক্তিকারী বহিষ্কৃত সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর গ্রেপ্তারের দাবিতে ন্যাশনালিস্ট ডেমোক্র্যাটিক ফ্রন্ট (এনডিএফ) এর ডাকা হরতালে রংপুর মহানগরীসহ জেলার কোথাও তেমন প্রভাব পড়েনি। মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া এ হরতাল চলছে ঢিলেঢালাভাবেই। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে জনগণের সাড়াহীন এ হরতালে স্বাভাবিক ছিলো সবকিছুই। মাঠে ছিলো না কোনো পিকেটিং বা পিকেটার। নেই হরতাল সমর্থনে মিছিল। এদিকে হরতালে এনডিএফ জোটের কাউকে মাঠে দেখা যায়নি। সরজমিনে দেখা গেছে, হরতালে খাবার ও ঔষধের দোকানপাটসহ নগরীর সব ধরনের দোকান ও ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠান খোলো রয়েছে। হালকা যানবাহনসহ স্বাভাবিক রয়েছে দূরপাল্লার পরিবহন ও ট্রেন চলাচলও। এদিকে সরকারি, বে-সরকারি অফিস, আদালত, ব্যাংক-বীমা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা রয়েছে। হরতালে নাশকতা এড়াতে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন পয়েন্টসহ বিভিন্নস্থানে পুলিশের টহলে দেখা গেছে। সকালে নগরীর কয়েকজন সাধারণ লোকজনের সাথে কথা হলে তাদের অনেকেই এনডিএফ জোটের ডাকা হরতাল নিয়ে বিদ্রুপ মন্তব্য করেন। নগরীর শাপলা চত্বরের ব্যবসায়ী হাসান আলী হাসতে হাসতে বলেন, ‘এটা কার দল বাহে। হঠাৎ করি কায় হরতাল দিলে। কই টিভিততো সংবাদোত এই হরতালের কতা কওছে না’। হরতালে নগরীর কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি বলে জানান কোতোয়ালি থানার ওসি আবদুল কাদের জিলানী। তিনি বলেন, ‘নাশকতা ঠেকাতে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে’। পুলিশ সুপার আব্দুর রাজ্জাক পিপিএম জানান, মহানগরীসহ আশপাশের সকল উপজেলায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক অবস্থায় আছে। কেউ নাশকতা করতে চাইলে তা কঠোরভাবে মোকাবেলা করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য