Dinajpur-24-11-14-----নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সোমবার দুপুরে শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে মারধরের ঘটনাও ঘটেছে। ধর্মঘটী বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা দিনাজপুর-দশ মাইল মহা-সড়ক অবরোধ করে রেখেছে। মুখো-মুখি অবস্থানে রয়েছে শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাসে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করেছে বিশ্ববিদ্যায় কর্তৃপক্ষ।  যে কোন মূহুর্তে রড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটনার আশংকা করছে অনেকেই।

বিশ্ববিদ্যালয়  ছাত্রলীগের ২ নেতার বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার ও ভিসি’র পদত্যাগের দাবিতে সৃষ্টি হয়েছে এ পরিস্থিতি। এই দাবীতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের ডাকে গত ১৭ নভেম্বর থেকে  অনির্দিষ্টকালের ছাত্র ধর্মঘটের এক সপ্তাহ  অতিবাহিত হয়েঝে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরনের ক্লাশ-পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ থেকে বিরত রয়েছে শিক্ষার্থীরা। মিছিল-মিটিং অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ রিজেন্ট বোর্ডের মিটিং এর সিদ্ধান্ত মতে শৃংখলা ভঙ্গের অভিযোগে ১৯ নভেম্বর বৃহস্পতিবার ৩ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে নোটিশ জারি করেছে। এক সপ্তাহের মধ্যে জবাব চাওয়া হয়েছে  অভিযুক্ত শিক্ষার্থীর কাছে। পাঠানো হবে। এ নিয়ে আবাসন ও শৃঙ্খলা কমিটির বৈঠকও হয়েছে।  আজ সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মচারী ঐক্য পরিষদের মিটিং চলার সময় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা মিছিল বের করে। বাধা দেয় শিক্ষক ও কর্মচারী।

এ সময় বাক-বিতন্ডতার এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের মারধর করা হয়। এ অভিযোগ ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক ও ছাত্রলীগ সভাপতি ইফতেখারুল ইসলাম রিয়েল এবং সদস্য সচিব রফিকুল ইসলামের। এরই প্রতিবাদে আজ সোমবার দুপুর পৌনে একটা থেকে দিনাজপুর-দশ মাইল মহা-সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা। এতে দিনাজপুর-রংপুর-ঠাকুরগাঁও ও পঞ্চগড় জেলার সড়ক যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়েছে। চরম দূর্ভোগে পড়েছে দূর-পাল্লার যাত্রীরা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অবরোধ চলছিলো।

উল্লেখ্য, গত ৪ নভেম্বর দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৫ শিক্ষাবর্ষের  অনার্স ১ম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষায় ১০৩ নং কক্ষে অত্যাধুনিক মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার করে নকল করার সময় রংপুরের পীরগাছা এলাকার আবুল হোসেন লিটন নামে একজনকে অটক করে দায়িত্বরত শিক্ষকরা। আটক অবুল হোসেন লিটন জানায়, তাকে ক্যালকুলেটরের ছদ্মাবরনে মোবাইল ডিভাইস এই ক্যালকুলেটরটি আমার বন্ধুর বড় ভাই দিয়েছেন। তিনি ঢাকার একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স পাশ করেছেন তার নাম মনির।তিনি ৫০ হাজার টাকার চুক্তিতে আমাকে এটি দিয়েছে। এ ঘটনায় বিকেলে বৈঠক করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক অরুন কান্তি রায় সিটন ও আবাসিক হল ডি ছাত্রলীগ শাখার সভাপতি এসএম জাহিদ হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত  করে হাবিপ্রবি’র কর্তৃপক্ষ । এরই প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়  ছাত্রলীগের ২ নেতার বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার ও ভিসি’র পদত্যাগের দাবিতে সৃষ্টি হয়েছে এ পরিস্থিতি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য