পঞ্চগড়ে শ্রমিক কল্যান ট্রাস্টের চাঁদা আদায়কে কেন্দ্র করে শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষের একপর্যায়ে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে মোটর মালিক সমিতিসহ তিন সংগঠন। ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়কে শনিবার সন্ধ্যা থেকে বাস মিনিবাস এলোপাতাড়ি রেখে অবরোধ পালন করছে চার সংগঠনের নেতাকর্মীরা। রোববার সকাল থেকে ঢাকাগামী কোচগুলো পঞ্চগড় ছেড়ে যায়নি। এতে গত শনিবার সন্ধ্যা থেকে চরম অসুবিধায় পড়েছে যাত্রীরা। জানা গেছে, শ্রমিক কল্যান ট্রাস্টের নামে দীর্ঘদিন থেকে নাইট কোচগুলোতে চাঁদা আদায় করে আসছে তিন শ্রমিক ইউনিয়নসহ মোটর মালিক সমিতি। বেশ কিছুদিন ধরে নিয়মিত চাঁদা না পেয়ে শনিবার সন্ধ্যায় নেতাকর্মী ও শ্রমিকেরা একত্রিত হয়ে চাঁদা আদায়ের চেষ্টা চালায়। এ সময় ডে-নাইট কোচ কল্যান সমিতির কিছু নেতাকর্মী শ্রমিক নেতা মো: রেনু মিয়ার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলার বিষয়টি জানাজানি হলে আবারও উভয় পক্ষের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এরপর রাত ১০ টায় মোটর মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আপেল মাহমুদ বাদি হয়ে ৮ জনের নামে মামলা দায়ের করেন। দুপুর আড়াইটায় পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের নেতা মো: মনির হোসেন মনু ও মো: মনিরুজ্জামান মুকুল জানায়, ৮ জন আসামির মধ্যে অন্তত ৬ জনকে আটক না করা পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে। একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও কাউন্টার কল্যান সমিতি’র কেউকে পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে পঞ্চগড় পুলিশ সুপার মো: আবুল কালাম আজাদ বলেন, মামলা গ্রহণ করে একজন আসামিকে আটক করা হয়েছে। পরিবহন ধর্মঘট নিরসনে শ্রমিক সংগঠনগুলো আলোচনায় বসেছে। শ্রীঘ্রই যানবাহন চলাচল শুরু হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য