ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি ॥ ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়া আজাদ মেলায় যাত্রা ও ভ্যারাইটিস শো’র নামে চলছে নারীদের অশ্লীল ও নগ্ন দেহ প্রদর্শনী। গত ৫ নভেম্বর মেলা উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মূকেশ চন্দ্র বিশ্বাস। জানা যায়, রুহিয়া আজাদ মেলায় ২২ টি ভ্যারাইটিজ শো এবং পদ্মা ও তাজ মহল অপেরা নামে ২ টি যাত্রা পালা চলছে। ভ্যারাইটিজ শো প্যান্ডেল সকাল ১০ টা থেকে রাত ১২ টা পর্যন্ত চলে বস্ত্রবিহীন নৃত্য। যাত্রায় কোন অভিনয় নেই। আছে শূধু বস্ত্রবিহীন বিভিন্ন অঙ্গ ভঙ্গির নৃত্য। এলাকার উঠতি বয়সের যুবকেরা মঞ্চে উঠে এ সকল নৃত্য শিল্পীর উপর মুঠে মুঠে টাকা ছুড়ছে আর শিল্পীর বিভিন্ন অঙ্গে টাকা গুজে দিচ্ছে । চলছে হাত দিয়ে অঙ্গ স্পর্শ সহ চুমুর ব্যবসা। এলাকার মুসল্লীদের অভিযোগে ফজরের নামাজের সময় যাত্রার মিউজিকের শব্দে সঠিকভাবে নামাজ আদায় করা যাচ্ছে না। অপরদিকে এ সকল ভ্যারাইটিজ শো ও যাত্রার মাইক ও মিউজিকের শব্দে মেলার আশপাশের জেএসসি ,জেডিসি পরীক্ষার্থীদের চরম ক্ষতি হচ্ছে। বয়স্ক ও শয্যাশায়ী রোগীরা শব্দের অসহ্য যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে । এভাবে চলতে থাকলে সামাজিক অবক্ষয়ে আইন শৃঙ্খলার অবনতি সহ যুব সমাজ ধ্বংস হয়ে যাবে। এ ব্যাপারে মেলা কমিটির সম্পাদক মকবুল হোসেন বলেন, মেলায় বিনোদনের জন্য নাচ-গান হচ্ছে, তবে কোন অশ্লীলতা হয় না। রহিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোজ কুমার রায় অভিযোগ স্বীকার করে বলেন, মেলায় কোন অসামাজিক কার্যকলাপ আমাদের চোখে পড়েনি। এলাকাবাসী মেলা অশ্লীল নৃত্য বন্ধের দাবি জানিয়ে হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য