আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার শালমারা ইউনিয়নে হাঁস ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে উভয় গ্রামের মহিলাসহ অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছে। এসময় বাড়ি ভাংচুর সহ লুটপাটের ঘটনাও ঘটেছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনলেও উভয় গ্রামবাসীর মধ্যে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। জানা গেছে, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার শালমারা ইউনিয়নের শাখাহাতি গ্রামের মশিউর রহমানের জমির কিছু ধান পাশের হামছাপুর গ্রামের লোকমান আলীর ৪ টি হাস খেয়ে ফেলে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল বুধবার সকাল ৮ টায় উভয় গ্রামের লোকজনের মাঝে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া , ইটপাটকেল নিক্ষেপ সহ সংঘর্ষ চলতে থাকে। এসময় উভয় গ্রামের  আব্দুল মতিন (২৫), আঃ রাজ্জাক (২৮), সাজু মিয়া (২৫), আশরাফুল (৩০), মহাতাফ আলী (৩৫), ফারুক হোসেন (২৮), আঃ সাত্তার (৫০), গোলজার হোসেন (৫০), জয়নাল (৫৫), মাজেদা খাতুন, (৪০), মোর্শেদা বেগম (২৫), বেলী বেগম (৫৫), সাজিয়া বেওয়া (৬০),  বেলাল (৩৫), আমিরুল (৪০), তাহেরুল (২৫), শাহিনুর (৩৫), নয়ন মিয়া (২৫), বিপুল (২৫), তোজাম্মেল (৫০) সহ প্রায় অর্ধশত ব্যক্তি আহত হয়। গুরুত্বর আহতদের গোবিন্দগঞ্জ ও সোনাতলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ বেলা ১১ টায় ঘটনাস্থলে পৌঁছাইলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এসেছে। হামছাপুর গ্রামের আছলাম উদ্দিন জানায়, প্রতিপক্ষের প্রায় ৩০ জনের একটি দল এসে তার বাড়ি ঘর ভাংচুর করে তার ঘরে রক্ষিক ব্যবসা করার নগদ ৫৭ হাজার টাকা ও এক ভরি স্বর্ণের গহনা সহ ঘরের বিভিন্ন মালামাল লুট করেছে। শালমারা ইউপি চেয়ারম্যান আমির হোসেন শামীম সংঘর্ষের ঘটনা স্বীকার করে জানান, বিষটি মিমাংশার চেস্টা চালানো হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য