Modhoparaএকরামুল হক বেলাল,পার্বতীপুর (দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ জাতীয় গ্রেডে ১৩ ঘন্টা বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের কারনে পার্বতীপুরের মধ্যপাড়া পাথর খনির উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে। ঝুঁকির মুখে পড়েছিল উৎপাদন কাজে নিয়োজিত খনি শ্রমিকদের জীবনের নিরাপত্তা। আর্থিকভাকে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বিদেশী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জার্মানিয়া-ট্রেস্ট কনসোর্টিয়াম(জিটিসি) এবং পেট্রোবাংলার প্রতিষ্টান মধ্যপাড়া গ্রানাইট মাইনিং কোম্পানী লিমিটেড।

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনির জিটিসি সুত্রে জানা গেছে, গতকাল শনিবার সকাল ১১ টায় জাতীয় গ্রেডে বিদ্যুৎ বিপর্যয়ে সারা দেশ একসাথে বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ে। ফলে মধ্যপাড়া পাথর খনিতে ৩ শিফটে উৎপাদন কার্যক্রমের ১ম শিফটে পাথর উত্তোলন শুরু হওয়ার কয়েক ঘন্টা পর বিদ্যুতের অভাবে উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। এসময় খনি শ্রমিকদের নিরাপত্তার কথা ভেবে ভ-ুগর্ভ থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় তাদের উপরে নিয়ে আসা হয়।

সারা দিন এবং রাতে বিদ্যুতের অপেক্ষায় থেকে পাথর উত্তোলনের কর্ম পরিকল্পনা অনুযায়ী ৩ টি শিফটের উৎপাদন বিঘœ ঘটে। টানা প্রায় সাড়ে ১৩ ঘন্টা বিদ্যুৎ বিহীন থাকার পর রাত প্রায় সাড়ে ১২ টার দিকে বিদ্যুৎ এলে আংশিক ভাবে উৎপাদন কার্যক্রম শুরু হয়। এখানে উল্লেখ্য যে ইতিপুর্বেও এই ধরনের বৈদ্যুতিক বিপর্যয়ের কারনে উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে।

মধ্যপাড়া পাথর খনিতে ভ-ুগর্ভে উৎপাদন কাছে নিয়োজিত বিশেষজ্ঞরা বলছেন, খনির ভু-গর্ভস্থ্য নিরাপত্তা এবং এখানে কর্মরত খনি শ্রমিক ও সংশ্লিষ্টদের জীবনের নিরাপত্তার কথা ভেবে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার পাশাপাশি বিকল্প উপায়ে জরুরী বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থা করা আশু প্রয়োজন।

মধ্যপাড়া পাথর খনিতে কর্মরত জার্মানিয়া-ট্রেস্ট কনসোর্টিয়াম (জিটিসি) কর্তৃপক্ষ জানান, খনির ভু-গর্ভে কিছু সিস্টেম চালু রাখতে এবং খনি ¤্রমিকদের জীবনের নিরাপত্তার জন্য নিরবিচ্ছিন বিদ্যুতের প্রয়োজন। খনিতে বিদ্যুতের চাহিদা মেঠানোর জন্য আইন অনুসারে ২ টি সরবরাহ লাইন থাকতে হয়। মধ্যপাড়া পাথর খনিতে ২ টি লাইন নির্মাণ করা হলেও ১ টি লাইন দিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে আর ১ টি লাইন রহস্য জনক কারনে বন্ধ হয়েছে।

বিদ্যুৎ সংকটে বা এই ধরনের পরিস্থিতিতে বিকল্প লাইনের মাধ্যমে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের ব্যবস্থা না থাকলে বিদেশী কোম্পানী বিনিয়োগে নিরুৎসাহিত হবেন। তারা খনির নিরাপত্তা ও খনি শ্রমিকদের নিরাপত্তার কথা ভেবে এবং ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের আর্থিক ক্ষতির কথা বিবেচনা করে সার্বক্ষনিক বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য বর্তমানে অচল ৩৩ কেভি লাইনটি সচল করে জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালযের দৃষ্টি আর্কষন করছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য