নীলফামারীর ডিমলায় শ্বশুর বাড়িতে স্ত্রীকে নিতে এসে খুন হলো জামাতা। গত রোববার রাত ১০ টায় উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ সুন্দরখাতা (শিং পাড়া) গ্রামে স্ত্রীকে নিতে এসে খুন হলো জামাতা। জানাগেছে, গত প্রায় ৩ বৎসর পূর্বে ঠাকুরগাও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার বন্দর কলেজ পাড়া গ্রামের খোকন সরকারের ছেলে পনিক সরকার (৩০) প্রেম করে বিয়ে করেন ডিমলা উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ সুন্দরখাতা(শিং পাড়া) গ্রামের তপন কুমার শিংহ রায়ের কন্যা বৃষ্টি রানী শিং (১৮) কে। বাবা মার অমতে প্রেম করে বিয়ে করার কারণে বিয়ের পর হতে জামাতা পনিকের সাথে শ্বশুর তপনের বনিবনা ছিলোনা। সোমবার স্ত্রী বৃষ্টি রানী পিত্রালয়ে থাকার সুবাদে স্বামী পনিক সরকার রাত্রি ৮ টায় শ্বশুর বাড়িতে আসে স্ত্রীকে নেয়ার জন্য। কিন্তু শ্বশুর তপন কুমার তার কন্যাকে পাঠিয়ে দিতে না চাইলে। স্ত্রী বৃষ্টির সাথে পনিকের বাক বিতন্ডা বাঁধে। এক পর্যায় পনিক তার স্ত্রীকে পিতা তপনের সামনে মারধর করলে। বৃষ্টির পিতা ক্ষিপ্ত হয়ে কৌশলে পনিক কে হত্যা করে লাশ পুকুরে ফেলে দেয়। ঘটনার ২ ঘণ্টাপর ১২ টায় এলাকাবাসী পনিকের লাশ উদ্ধার করে ডিমলা হাসপাতালে নিয়ে ঘেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলা হয়নি। একটি মহল বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রাভাবিত করার চেষ্টা করছে। ডিমলা থানার ওসি শওকত আলী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি সন্দেহজনক তবে এখন পর্যন্ত কেউ কোন অভিযোগ করেনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য