Dinajpur-15-02-14-জিন্নাত হোসেনঃ গত ৫ জানুয়ারী নির্বাচনে দিন ভোট দিতে যাওয়ার অপরাধে বিএনপি-জামায়াত সন্ত্রাসীদের আগুনে পুড়ে যাওয়া চিরিরবন্দর উপজেলার ওকড়াবাড়ী হাটে ক্ষগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শণ করেছেন জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম। গতকাল শনিবার সকাল ১১টায় তিনি ওই এলাকা পরিদর্শণ করেন।

ভুক্তভোগীরা জানান, ভোটের দিন বিকাল ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে বিএনপি-জামায়াত-শিবিরের সন্ত্রাসীরা হিন্দু সম্প্রদায়ের ৪৭ টি এবং আওয়ামীলীগ সমর্থক মুসলিম সম্প্রদায়ের ৫টি দোকান আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়া। তাঁরা অভিযোগ করে বলেন, ঘটনার এক মাস ৫ দিন পরও জেলা বা পুলিশ প্রশাসন, স্থানীয় সংসদ সদস্য, দলের নেতা বা কোন মানবাধিকার সংগঠনের পক্ষে সাহায্য তো দূরে থাক, সমবেদনা পর্যন্ত জানাতে আসেননি। চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

সংশ্লিষ্ট ভোট কেন্দ্র  খোসনা এসসি স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও চিরিরবন্দর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আহসানুল হক হুইপ ইকবালুর রহিমকে জানান, বেলা দুইটা পর্যন্ত কেন্দ্রে ভোট হয়েছে। এরপর জামায়াত-বিএনপির ক্যাডাররা ভোট কেন্দ্র আক্রমন করতে আসছে। এই খবর আসার পর ভোট গ্রহণ বন্ধ করে পুলিশ ও বিজিবির সহায়তায় ভোট বাক্সসহ মালামাল নিরাপদ স্থানে সরিয়ে দেওয়া হয়। এর আধা ঘন্টার মধ্যেই জামায়াত-বিএনপির অর্ধ শতাধিক সশস্ত্র ক্যাডার ওকড়াবাড়ী হাটে আক্রমন চালায়। হাটে শতাধিক দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে তাঁরা বেছে বেছে হিন্দু সম্প্রদায়ের ৪৭টি দোকান আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। হামলাকারীরা বাজার সংলগ্ন স্কুলের ১১ ও ১২ নং দুটি শ্রেণী কক্ষ পুড়িয়ে দেয় বলে তিনি জানান।Dinajpur-15-02-14--

আগুনে হাটের ৫টি মেহগনি ও তিনটি কাঁঠাল পুড়ে গেছে। মুদি ব্যবসায়ী দৈক্ষ্যনাথ জানান, ৫ জানুয়ারী ভোটের দিন সকালে হাটে অনেকেই দোকান খুলেছিলেন। গ্যাঞ্জাম হতে পারে আতংকে সকলে দোকান বন্ধ করে বাড়ী চলে যায়। বেলা দুইটার পর বিএনপি-জামায়াতের ক্যাডাররা আগুন দেয়। চাল-ডাল-তেল লবনসহ ৫২টি দোকানের মালামাল লুটপাট হয়েছে বলে তিনি জানান।

ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে সবুজ রায়ের দোকানের কীটনাশক ও সার, ধনঞ্জয় রায়ের ফটোকপি মেশিনসহ পুরো দোকান পুড়ে গেছে। মিঠুন রায়ের পান দোকান, রঞ্জন রায়ের চায়ের স্টল, বুধারী শীলের সেলুন দোকান, আওয়ামীলীগ সমর্থক দুলাল হোসেনের জুতার দোকান ভস্মিভুত হয়েছে।

স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা সন্তোস রায় জানান, ঘটনায় বিএনপি জামায়াত শিবিরের ক্যাডাররা তাঁর ১০ বিঘা ক্ষেতের আখ ও বাগানের ২৫ বছর বয়সী ১৭টি লিচু গাছ পুড়িয়ে দিয়েছে।
জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম সরেজমিন ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শণ শেষে সরকারের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের সব ধরণের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। তিনি ক্ষতিগ্রস্তদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমরা সবাই এই দেশের নাগরিক। জামায়াত-বিএনপিসহ যে কোন অপশক্তির হামলার সমুচিত জবাব দিতে তিনি সকলের প্রতি আহবান জানান।

তিনি এই ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরূদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে এবং সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে পুলিশের প্রতি নির্দেশ দেন। চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রওশন মোস্তফা, কোতয়ালী আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বিশ্বজিৎ ঘোষ কাঞ্চন, চিরিররবন্দর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আহসানুল মুকুল,১২নং আলোকডিহি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম, ৮নং  সাইতাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোকারম হোসেন, ১১নং তেতুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুনিল সাহা  ছাড়াও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা এসম উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য