11_Afganistanআন্তর্জাতিক ডেস্ক: আফগানিস্তানে ৪ নারীকে দলগত ধর্ষণের দায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত ৫ ব্যক্তির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। এ ধর্ষণের ঘটনায় আফগানিস্তানজুড়ে ব্যাপক ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছিল। বুধবার আফগান কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, কাবুলের পূর্ব দিকের পুল-ই-চারখি কারাগারে আসামীদের ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে।

এ ছাড়া একই কারাগারে অন্য একটি অপরাধে আরেকজনের ফাঁসিও কার্যকর করা হয়েছে। সাক্ষ্য-প্রমাণ যথেষ্ট জোরালো নয় দাবি করে শেষ মুহূর্তে শাস্তি কমানোর আবেদন জানিয়েছিল মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তা অগ্রাহ্য করে।

আফগানিস্তানের সর্বত্রই নারীর প্রতি সহিংসতার ঘটনা ঘটলেও এ ধরনের মামলার ক্ষেত্রে এতটা মনোযোগের ঘটনা বিরল। অনেক আফগানই এ ঘটনায় দায়ীদের মৃত্যুদণ্ড দাবি করেছিল। এই গণদাবির মুখে শাস্তি কার্য্যকর না হওয়ার তেমন কোনো সম্ভাবনা ছিল না।

সরকারি আইনজীবীদের প্রধান আত্তা মোহাম্মদ নুরি বলেছেন, “আদালতের রায় অনুসারে অভিযুক্ত কুখ্যাত অপহরণকারী দলের নেতা হাবিব ইসতালিফিসহ পাগমানের ঘটনার জন্য পাঁচজনের সবার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে।” নিজের শেষ কার্যদিবসে সাবেক প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই মৃত্যুদণ্ডের পরোয়ানায় সই করেন।

নতুন প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি। ২৩ অগাস্ট রাতে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে পরিবারের সঙ্গে কাবুলে ফিরে আসছিলেন ওই ৪ নারী। এ সময় নিকটবর্তী পাগমান জেলার একটি জনপ্রিয় পিকনিক স্পটে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে। সশস্ত্র হামলাকারীরা পরিবারটির পুরুষদের বেঁধে ওই নারীদের জোর করে গাড়ি থেকে নামিয়ে নিয়ে যান। হামলাকারীদের কারো কারো গায়ে পুলিশের পোশাক ছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য