নীলফামারীর ডিমলায় চোরাই ও ছিনতাই মোটরসাইকেল সিন্ডিকেটের মূলহোতা সনাক্ত। উপজেলা সদরের বাবুরহাট গ্রামের মৃত- কোরবান আলীর ছেলে অবসরপ্রাপ্ত সৈনিক মোঃ ওমর আলী(৪২) দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন চোরাই ও ছিনতাই মোটরসাইকেল এলাকায় এনে জাল কাগজ তৈরি করে এলাকার সহজ সরল মানুষদের নিকট বিক্রয় করে আসছিলো। জেলার জলঢাকা উপজেলার হারোয়া শিমূলবাড়ি গ্রামের মৃত-আফছার আলীর ছেলে মোঃ আনোয়ারুল জাহিদ মিলন জানান,গত প্রায় ১ বছর আগে পুরাতন মোটরসাইকেল কেনার সন্ধ্যানে ডিমলায় আসলে পরিচয় হয় চোরাই মোটরসাইকেল সিন্ডিকেটের মূলহোতা ওমর আলীর সাথে। এবং ওমর তার নিকট একটি পুরাতন ডিসকভার মোটরসাইকেল ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা মূল্যে বিক্রয় করে নীলফামারী নোটারী পাবলিক কার্যালয়ের মাধ্যমে ১ শত ৫০ টাকার ননজুডিশিয়াল ষ্ট্যাম্পে এফিডেভিট করে দেন। যাহার (ভুয়া রেজিষ্টেশন নাম্বার) দিনাজপুর হ-১১-০৭১০। পরবর্তীতে তাহার টাকার প্রয়োজন হওয়ায় তিনি মোটরসাইকেলটি অন্যত্র বিক্রয় করতে চাইলে ক্রেতা মোটরসাইকেলটির রেজিষ্টেশন নাম্বারটি সঠিক কি-না যাচাই করতে গিয়ে জানতে পারেন ব্যবহিত রেজিষ্টেশন নাম্বারটি ভুয়া। মিলন খোঁজ খবর নিয়ে ক্রয়কৃত মোটরসাইকেলটি চোরাই জানতে পেরে গত ১৫ ই সেপ্টেম্বর ওমর আলীর নিকট মোটরসাইকেলটি ফিরিয়ে দিয়ে টাকা ফেরৎ চাইতে ডিমলায় আসলে। একে একে বেড়িয়ে আসে ওমরের বিক্রয়কৃত একাধিক মোটরসাইকেল ক্রেতা। উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ইয়াকুব আলী জানান,তিনি ওমরের নিকট গত ৬ মাস আগে ৬০ হাজার টাকা মূল্যে একটি হিরোহোন্ডা মোটরসাইকেল ক্রয় করেন। তিনি মোটরসাইকেলটি নিয়ে পারিবারিক কাজে রংপুরে গেলে। পুলিশের সার্জেন্ট মোটরসাইকেলটি আটকিয়ে তাহার কাগজপত্র দেখে মোটরসাইকেলটির রেজিষ্টেশন নাম্বার ভুয়া বলে সনাক্ত করলে। ইয়াকুব আলী কৌশলে মোটরসাইকেলটি নিয়ে ডিমলায় ফিরে এসে। মোটর সাইকেলের সাবেক মালিক ওমর আলীকে তাহার মোটরসাইকেল ফিরিয়ে নিয়ে টাকা ফেরৎ চাইলে। ওমর আলী বিষযটি কাউকে জানাতে নিষেধ করে কয়েকদিনের মধ্যে টাকা ফেরৎ দেওয়ার আশ্বাস দিলেও আজকাল করে কালক্ষেপন করতে থাকলে। বেড়িয়ে আসে মূল কাহিনী। ওমর আলী একটি দুটি নয় বিভিন্ন এলাকা হতে চোরাই ও ছিনতাই হওয়া প্রায় ডজন খানেক মোটরসাইকেল বিক্রয় ও চোরাই ও ছিনতাই মোটরসাইকেল সিন্ডিকেটের মূলহোতা হিসেবে তার নাম এলাকায় জানাজাননি হয়ে যায়। গত ২০ সেপ্টেম্বর স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিকট শালিসের মাধ্যমে বিক্রয়কৃত মোটরসাইকেল গুলির টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে ওমর আলী মামলার ভয়ে গা ঢাকাদেয়। বর্তমানে ওমর আলী পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য