Gibandha-Shagat-Photoআরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ বন্যার পানি কমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গাইবান্ধার সাঘাটার বিভিন্ন পয়েন্টে যমুনায় ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়েছে। গত তিনদিনের ভাঙনে হলদিয়া, ভরতখালি ও সাঘাটা ইউনিয়নে শতাধিক ঘরবাড়ি যমুনা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এছাড়া আরও দুই শতাধিক ঘরবাড়ি হুমকির মুখে রয়েছে। নদীভাঙনে গৃহহারা পরিবারগুলো বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ অথবা অন্য উঁচু এলাকায় গিয়ে আশ্রয় নিয়ে এখন মানবেতর জীবন-যাপন করছে। এদিকে, সাঘাটার গোবিন্দপুর, পাতিলবাড়ি, গাড়ামারা, হলদিয়া ও গোবিন্দি এলাকা জুড়েই এ ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। ইতোমধ্যে গাড়ামারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও একটি কবরস্থান নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। হলদিয়া ইউনিয়নের শরিফুল ইসলাম জানান, কানাইপাড়া দাখিল মাদ্রাসার তিনতলা একটি ভবন, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হলদিয়া ঈদগাহ মাঠসহ প্রায় দুই কোটি টাকার সম্পদ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। ভাঙনকবলিত এলাকার তোফাজ্জল হোসেন ও আব্দুল হালিম মিয়া জানান, অন্যের জায়গায় মাথা গোজার ঠাঁই করে কোনোমতে দিন কাটাচ্ছেন তারা।  হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মন্ডল জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ডকে ভাঙন ঠেকাতে আবেদন জানিয়েও কোনো প্রতিকার মেলেনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য