পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধিঃ সংরক্ষিত আসনের এমপি সেলিনা জাহান লিটাকে পীরগঞ্জে অবাঞ্চিত করার প্রস্তাব করেছে ঠাকুরগাও পীরগঞ্জ উপজেলার খনগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ। শনিবার বিকেলে লোহাগাড়া বাজারে ইউনিয়ন আ’লীগের এক কার্যনির্বাহী সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।  সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ, দলীয় নেতা কর্মী ও জনগনের ইচ্ছাকে অমান্য করে সার্থ হাসিল এর উদ্যেশ্যে নিজেই লোহাগাড়া কলেজে’র সভাপতি পদটি দখল করেন।এজন্য পীরগঞ্জ লোহাগাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ তাকে অবাঞ্চিত ঘোষনার প্রস্তাব উপজেলা আওয়ামীলীগে রেজুলেশন আকারে প্রেরণ করেন। বঙ্গবন্ধুর শাহাদত বার্ষিকি উপলক্ষ্যে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি সহিদ হোসেনের সভাপতিত্বে এ আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সম্পাদক বাদল চন্দ্র রায়, বিজয় কুমার রায়, সহিরোদ্দীন গেদু, ইকরামুল হক, পজিদুর রহমান, উত্তম কুমার রায় প্রমুখ। সভায় সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য সেলিনা জাহান লিটা দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে অনৈতিক সুযোগ সুবিধা লাভের আশায় ইউনিয়নের অবস্থিত লোহাগাড়া কলেজের এডহোক কমিটির সভাপতি হয়। ইতিপূর্বে অত্র কলেজের সাবেক সভাপতি জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সভাপতি ইমদাদুল হককে ঠাকুরগাও-৩ আসনের নির্বাচিত সাংসদ ইয়াসিন আলী লোহাগাড়া কলেজের সভাপতি হওয়ার জন্য ডিও লেটার প্রদান করলেও এমপি লিটা সেই নির্দেশনা অবজ্ঞা করে নিজেই নিজের নামে ডিও লেটার লিখে বোর্ডে প্রেরণ করে ও অত্র কলেজের সভাপতি হন। এমপি লিটা সভাপতি হওয়ায় খনগাও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগসহ বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ নিন্দা জানান। এ বিষয়ে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এমপি লিটার যে কোন সভা ও সফর সঙ্গি না হওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন এবং তাকে পীরগঞ্জ উপজেলায় অবাঞ্চিত ঘোষনা করার প্রস্তাব রাখেন।এ বিষয়ে জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সভাপতি ইমদাদুল হক বলেন, কলেজ টি আমরা প্রতিষ্ঠা করেছি লিটা এম পি দুর্ণীতিবাজ অধ্যক্ষ আজহারুল ইসলামকে বাঁচানোর জন্য নিজেই কলেজের সভাপতি হয়েছেন। এতে এলাকার লোকজন ক্ষিপ্ত হলে আমার করার কি আছে।এ বিষয়ে মহিলা এমপি সেলিনা জাহান লিটা বলেন, আমি দায়িত্বে থাকা অবস্থায় দূর্নীতির সুযোগ দিবোনা বলেই কলেজের পরিবেশ ঠিক করতে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছি। কেউ যদি আমার বিরুদ্ধে খারাপ কিছু বলে থাকেন। সেটি তার একান্ত ব্যক্তিগত ব্যাপার। আর আমাকে অবাঞ্চিত ঘোষনা করা হয়েছে কি না তা আমি শুনিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য