Dinajpur pic-18-08-14-জিন্নাত হোসেনঃ দিনাজপুর শহরে পাওয়ার হাউজ এর পিছনে বেলতলা ইসলামবাগ মহল্লায় যৌতুকের কারনে পাষন্ড স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে হত্যার চেষ্ঠা। থানায় মামলা দায়ের।

জানা যায়, দিনাজপুর শহরে পাওয়ার হাউজ এর পিছনে বেলতলা ইসলামবাগ মহল্লার মৃতঃ নুর ইসলাম এর কন্যা মোছাঃ মুক্তি বেগম (৩০) এর সহিত প্রায় ১৫ বছর পুর্বে দিনাজপুর সদর উপজেলার চাঁদগঞ্জ গ্রামের মোঃ নজরুল ইসলামের সহিত বিবাহের পর থেকেই নজরুল যৌতুকের লোভে বিভিন্ন কারণে অকারণে মুক্তি বেগমকে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিল।

এক পর্যায়ে নজরুল তার স্ত্রীকে দিয়ে শাশুরীর কাছ থেকে যৌতুক বাবদ এক লক্ষ টাকা আনার চাপ সৃষ্টি করে। মুক্তি বলে যে আমার বিধবা মা নিজেই কষ্ট করে জীবিকা নির্বাহ করে। সে ১ লক্ষ টাকা কোথায় পাবে এটা আমার মায়ের পক্ষে দেয়া সম্ভব নয়। সে সময় মুক্তির স্বামী তার সহযোগিদের নিয়ে তাকে মারপিট করে মাথা ফেটে গুরুতর জখম করে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে। এক পর্যায়ে মুক্তি তার দুই সন্তানকে নিয়ে মায়ের বাড়ীতে চলে আসে গত প্রায় ২ বছর পুর্বে।

গত ১২ আগস্ট ২০১৪ ইং তারিখে রাত ৯টার সময় মুক্তির স্বামী নজরুলসহ তার সহযোগীরা যোগসাজস করে মিমাংসার নামে ইসলামবাগ মুক্তির মায়ের বাড়ীতে আসে এবং মিমাংসার নামে যৌতুক বাদ ১ লক্ষ টাকা না দিলে নজরুলের সহযোগিরা জানান নজরুলকে পুনরায় অন্যত্র বিয়ে দিয়ে বেশী যৌতুক আনা যাবে। সে সময় মুক্তি তার বিধবা মায়ের কাছ থেকে যৌতুক এনে দিতে অস্বীকার করলে।

নজরুল তার সহযোগিদের সহযোগিতায় মুক্তির চুলের মুঠি ধরে রশি দিয়ে হাত পা বেধে ধারালো খুর দিয়ে মু্িক্তকে হত্যার উদ্দেশ্যে বাম গালে চোখের কোন থেকে থুতুনি পর্যন্ত এলোপাথারী পর ৩ বার সজোরে আঘাতসহ শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে। সে সময় মুক্তি চিৎকারে তার মা ও বোন মুক্তিকে উদ্ধার করার জন্য ঘটনাস্থলে গেলে আসামীরা ধারালো চাকু দিয়ে তাদেরও আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মুক্তিকে ১৮ আগষ্ট সোমবার দিনাজপুর পল্লীশ্রীর প্রতিনিধিরা দেখতে যান এবং চিকিৎসার খোজ খবর নেন।

এবারে দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং-৩৩, তারিখ ঃ ১৭-০৮১৪ইং।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য