Majedar Rahman Duluপলাশবাড়ী (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার ৮নং মনোহরপুর ইউপি চেয়ারম্যান মাজেদুর রহমান রহমান দুলুকে চেক ডিজঅনার মামলায় ১ বছরের সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে বিজ্ঞ আদালত। বর্তমানে চেয়ারম্যান দীর্ঘদিন থেকে পলাতক থাকায় তার বড় ভাই দুখু মিয়া অবৈধভাবে ওই ইউনিয়নে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন। অপরদিকে, অর্থ আত্মাসাৎ, অনিয়ম-দূর্ণীতির কারণে ওই ইউনিয়নের সকল সদস্য/সদস্যাগণ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব স্বাক্ষরিত দরখাস্ত জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট দাখিল করেন। জানা গেছে, ঢাকার ধানমন্ডি, ঝিগাতলা, সাং- ৪৪/এন, নতুন রাস্তা এলাকার মৃত জাবেদ আলী খানের পুত্র ব্যবসায়ী আতাউর রহমান খান পলাশবাড়ীর মনোহরপুর ইউপি চেয়ারম্যান মাজেদুর রহমান দুলু’র নিকট ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা পাওনা থাকেন। চেয়ারম্যান দুলুর স্বাক্ষরিত উক্ত পরিমাণ টাকার একটি (চেক নং- ১৭৯৭৭৫৫) বিগত ০২/০২/০৯ পাওনাদারকে প্রদান করলে ১৮/০৩/০৯ এবং ২৩/০৩/০৯ তারিখে উক্ত পরিমাণ টাকা চেকের অনুকুলে না থাকায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চেকটি ডিজঅনার করেন। পরবর্তীতে পাওনাদার বাদী হয়ে ০৪/০৫/০৯ তারিখে যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ, ৭ম আদালত, ঢাকায় মামলা (সিআর মামলা নং-১৬৭৮/০৯, মেট্রো দায়রা-৫৯৮৬/১০) দায়ের করেন। দীর্ঘদিন মামলা চলার এক পর্যায়ে এবং অভিযুক্ত আসামী আদালতে হাজিরা না দেওয়ায় বিজ্ঞ আদালত চেয়ারম্যান মাজেদুর রহমান দুলুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারিসহ ১ বছরের সশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত ও পাওনাদার বাদীকে চেকে উল্লেখিত পরিমাণ টাকার তিনগুণ অর্থাৎ ১৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা দিতে হবে মর্মে বিজ্ঞ বিচারক ২০/০৫/১২ এ রায় প্রদান করেন। অপরদিকে, চেয়ারম্যান দীর্ঘদিন থেকে পলাতক থাকায় ইউনিয়ন পরিষদের সকল কার্যক্রম তার বড় ভাই মনোহরপুর দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক মোনায়েম রহমান দুখু অবৈধ ভাবে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করায় ইউনিয়নে সকল কার্যক্রম ভেস্তে যেতে বসেছে। এছাড়াও উক্ত চেয়ারম্যান ২০১১-১২, ২০১২-১৩ অর্থবছরের টিআর, কাবিখার বরাদ্দকৃত ২২ মেঃটন খাদ্য শস্য ভুয়া কমিটির মাধ্যমে উত্তোলন করে আত্মসাৎ, ২০১১-১২, ২০১২-১৩ অর্থবছরের এলজিএসপি’র মোট ৩ লাখ ৫০ হাজার, ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তার গাছ কেটে প্রায় ১০ লাখ টাকা, ট্রেড লাইসেন্স, যানবাহন কর ট্যাক্সসহ উন্নয়ন করা আদায় করে তা সরকারী রাজস্ব খাতে জমা না করে সমুদয় টাকা আত্মসাৎ করেন। চেয়ারম্যানের এসব পাহাড়সম অনিয়ম-দূর্ণীতি, স্বজনপ্রীতি ও অর্থ আত্মসাৎ ও পলাতক থাকায় ওই ইউনিয়নের ১১ জন সদস্য/সদস্যার স্বাক্ষরিত অনাস্থা প্রস্তাব আনায়ন করে গত ১৪/০৮/১৪ইং তারিখে মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক, পলাশবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অভিযোগ দাখিল করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য