adalatরতন সিং, দিনাজপুর ॥ দিনাজপুর আল-আমীন বীমা এন্ড ইসলামিক ইন্সুরেন্স এর আঞ্চলিক কর্মকর্তা মোস্তাকিম বিল¬্যা হত্যা মামলায় জেএমবি’র সুরা সদস্য ও সামরিক কমান্ডার আনোয়ার আলম ওরফে খোকা ওরফে নামজুল ওরফে তুহিন ওরফে ময়নুল ওরফে ভাগ্নে শহীদ (৩২)কে পুলিশের কড়া পাহাড়ায় আদালতের হাজির করলে বিচারক পরবর্তী আগামী ১২ অক্টোবর সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য দিন ধার্য করে ভাগ্নে শহীদকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

সোমবার দুপুরে দিনাজপুরের জেলা ও দায়রা জজ-২ এর বিচারক মাহমুদুল করিম এর আদালতে চাঞ্চল্যকর আল-আমীন বীমা এন্ড ইসলামিক ইন্সুরেন্সের আঞ্চলিক কর্মকর্তা মোস্তাকিম বিল¬্যা হত্যা মামলার বিচারের জন্য দিন ধার্য্য ছিল। মামলার অন্যতম আসামী জেএমবি’র সুরা সদস্য ও সামরিক কমান্ডার আনোয়ার আলম ওরফে খোকা ওরফে নামজুল ওরফে তুহিন ওরফে ময়নুল ওরফে ভাগ্নে শহীদ (৩৫)কে পুলিশের কড়া পাহাড়ায় দুপুরে আদালতে হাজির করা হয়। আসামী ভাগ্নে শহীদের পক্ষে মামলা পরিচালনার জন্য সরকারী খরচে এ্যাডঃ ইব্রাহীম খলিলকে নিয়োগ করা হয়েছে। আগামী ১২ অক্টোবর সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য দিন ধার্য্য করে ভাগ্নে শহীদকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন। মামলার এজাহারকারীসহ ৩ জনকে আগামী ধার্য্য তারিখে সাক্ষ্য দেয়ার জন্য আদালতে হাজির করতে সমনজারীর আদেশ প্রদান করা হয়।

এই মামলার অপর আসামী ভাগ্নে শহীদের স্ত্রী ও শীর্ষ মহিলা জঙ্গী বদরুন্নাহার লিমুকে গ্রেফতার করতে পুলিশ সদর দপ্তরের মাধ্যমে দেশের সকল থানায় হুলিয়া ও গ্রেফতারী পরোয়ানা কার্যকর করতে বিচারক তাগিদের আদেশ দেন। দুপুরে ভাগ্নে শহীদকে কড়া পুলিশ ও র‌্যাব প্রহরায় আদালত থেকে দিনাজপুর জেল কারাগারে প্রেরণ করা হয়। সূত্রটি জানায়, ভাগ্নে শহীদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জেলায় হত্যা, নাশকতা, অস্ত্র বিস্ফোরক ও জঙ্গীর সংক্রান্ত ঘটনায় ১৪টি মামলার তদন্ত ও বিচারাধীন রয়েছে। শীর্ষ মহিলা জঙ্গী বদরুন্নাহার লিমু স্থান ও ঠিকানা পরিবর্তন করে পুলিশের গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপনে রয়েছে। বদরুন নাহার লিমু পলাতক থাকায় তার অনুপস্থিতিতে বিচার কাজ চলছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য