ইরাকি জঙ্গিদের দমনের ঘোষণা ওবামারউত্তর ইরাকের দখল নেয়া সুন্নি জঙ্গিদের ইসলামি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা ব্যর্থ করার ঘোষণা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।
ইতোমধ্যেই ইরাকের উত্তরাঞ্চলে কুর্দিদের নিয়ন্ত্রণে থাকা আরবিল শহর দখলের পথে থাকা জঙ্গিদের ওপর বিমান হামলা শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রয়োজনে আরো হামলা চালানোর ঘোষণা দিয়েছেন ওবামা।
গত জুনে মসুল রাজ্য দিয়ে মালিকি সরকারের নিয়ন্ত্রণ থেকে ইরাকের দখল নেয়া শুরু করে ইসলামিক স্টেট জঙ্গিরা। ইতোমধ্যেই ইরাক ও সিরিয়ার বড় এলাকায় নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে পৃথক রাষ্ট্র (ইসলামি খেলাফাত) প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দিয়েছে তারা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রশিক্ষিত ইরাকি সেনাদের কাছ থেকেই একের পর অঞ্চল দখল শুরু করেছে জঙ্গিরা। সেনাদের ফেলে যাওয়া সমরাস্ত্রগুলো নিজেদের কাজে লাগাচ্ছে তারা। অধিকৃত এলাকাগুলো থেকে সংখ্যালঘু খ্রিস্টান ও ইয়াজিদি জনগোষ্ঠীকে উচ্ছেদ করছে জঙ্গিরা। ইতোমধ্যেই লাখ লাখ সংখ্যালঘু তাদের বাসস্থান ছেড়ে পালিয়েছে। জঙ্গিদের কারণে পাহাড়ি এলাকায় আটকা পড়া মানুষদের উদ্ধারে শুক্রবারের অভিযান শুরু হয়েছে বলে এক ঘোষণায় বলেন ওবামা।
ইরাকের শিয়া নেতৃত্ব সুন্নি ও কুর্দিদেরকে উত্তেজিত করার জন্য দায়ী করেছেন প্রেসিডেন্ট ওবামা।
গত শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস পত্রিকাকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে ওবামা বলেন, “আমরা ‘ইসলামিক স্টেটকে’ ইরাক ও সিরিয়ায় খেলাফাত প্রতিষ্ঠা করতে দিচ্ছি না। তবে মাঠে যদি শূন্যস্থান পূরণ করার মতো কোনো সহযোগী পাই কাজটি তখনই করা যাবে।”
এর ব্যাখ্যায় ওবামা বলেন, “আমরা তাদেরকে কিছু সময়ের জন্য সরিয়ে দিতে পারি। কিন্তু যখনই আমাদের বিমানগুলো চলে আসবে, তারাও তখন ঠিকই ফিরে আসবে।” “সম্প্রতি জঙ্গিরা ইবরিল শহরের কাছাকাছি চলে আসে। বৃহস্পতিবার রাতে আমি সিদ্ধন্ত নেই যে, তারা যদি আর সামনে আগায় তাহলে আমাদের সৈন্যরাও সুনির্দিষ্ট আক্রমণ শুরু করবে, বলেন ওবামা। “সেটা আমরা করেছি এবং প্রয়োজন হলে আরো করবো।”তবে ইরাকে নতুন করে কোনো যুদ্ধ জড়ানোর ইচ্ছা নেই বলে জানিয়ে দেন ওবামা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য